জেলা প্রথম পাতা

তৃণমূলের পথেই হাঁটতে পারে সিপিএম! বিজেপিকে রুখতে ‘বালুর’ পাশে দাঁড়াতেও রাজি, বার্তা বাম বিধায়কের

নিজস্ব প্রতিনিধি: লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূলের বিপর্যয়ের পর দলের রাশ কার্যত নিজের হাতে তুলে নিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।সামনের লড়াইটা যে খুব একটা সহজ হবে না তা ভালোই বুঝতে পেরেছেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতারা।লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের ১৯টি আসনে জিতে তৃণমূলের ঘাঁড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে বিজেপি। দলের হারিয়ে যাওয়া ভাবমূর্তি ফেরাতে ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোরের দ্বারস্থ হয়েছেন স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পাশাপাশি, তৃণমূল নেত্রী এ-ও বার্তা দিয়ে রেখেছেন সাম্প্রদায়িক শক্তি মোকাবিলায় কংগ্রেস এবং সিপিএম-র সঙ্গে লড়তে তাদেরও কোনও আপত্তি নেই। তারপর থেকেই বিজেপিকে রুখতে এককাট্টা হচ্ছে সব রাজনৈতিক দলই।তৃণমূলের সাথে হাত মেলাতে যে খুব একটা আপত্তি নেই বামফ্রন্ট তা বোঝা গিয়েছিল সিপিএম নেতা গৌতম দেবের কথাতেই। এবার সেই একাই সুর আরেক বাম বিধায়কের গলাতেও। বাংলায় বিজেপিকে রুখতে তৃণমূলের হাত ধরাই যেতে পারে। এই বার্তা আরও স্পষ্ট করলেন সিপিএম নেতা তন্ময় ভট্টাচার্য। এর আগে গৌতম দেব বলেছিলেন, ইস্যু ভিত্তিক লড়াইয়ে তৃণমূলের পাশে থাকতে তাদের আপত্তি নেই। রবিবার, আরও এক ধাপ এগিয়ে তন্ময় ভট্টাচার্য জানান, মধ্যমগ্রামে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দিয়ে যদি গণপিটুনি হয়, আর ঘটনাস্থলে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক থাকেন, তিনিও তাঁর পাশে গিয়ে দাঁড়াবেন। তন্ময়বাবু বলেন, বিজেপিকে রুখতে ইস্যু ভিত্তিক লড়াইয়ে তৃণমূল-সিপিএম পাশাপাশি দাঁড়াতেই পারে। কোনও অস্পৃশ্যতার জায়গা নেই। সিপিএম-র সাধারণ সম্পাদক সীতারাম ইয়েচুরিও তৃণমূলের পাশে থেকে লড়ার বার্তা দিয়েছেন। তবে বিজেপিকে ঠেকাতে বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্যের এ দিনের মন্তব্যে এটা স্পষ্ট, তৃণমূলের হাত ধরতে এক পায়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে রাজ্যে কোণঠাসা সিপিএম।তবে আগামীদিনে কোন পথে যায় বঙ্গের রাজনীতি তা অবশ্য সময়েই বলবে।

Spread the love