করোনা দক্ষিণবঙ্গ দেশ প্রথম পাতা

করোনা আক্রান্ত নিজামুদ্দিন ফেরত হলদিয়ার যুবক ।

হলদিয়াঃঅবশেষে দিল্লির নিজামুদ্দিন ফেতর হলদিয়ার যুবকের শরীরে ধরা পড়লো নোভেল করোনা ভাইরাস। বৃহস্পতিবার রাতে স্বাস্থ্য দপ্তর তরফ থেকে রিপোর্ট পাওয়ার পরেই নিশ্চিত হয়  দিল্লির নিজামুদ্দিন ফেরত ওই যুবক করোনা আক্রান্ত। এরপর শুক্রবার ভোরে করোনা আক্রান্ত ওই যুবককে হলদিয়া মহকুমা হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ড থেকে কলকাতার বেলেঘাটা হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। এরফলে এখন গোটা শিল্পাঞ্চল হলদিয়া জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে ব্যাপক আতঙ্ক।
মার্চের দ্বিতীয় সপ্তাহে দিল্লির নিজামুদ্দিনে তবলিগ- ই- জামাতে যোগ দিতে গিয়েছিলেন পূর্ব মেদিনীপুর জেলার হলদিয়ার দেভোগের ওই ব্যাক্তি। এরপর ২৪ মার্চ দিল্লি থেকে ফিরে আসেন ওই ব্যক্তি। এরপর তাকে হলদিয়া মহকুমা হাসপাতালে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য পাঠানো হলে চিকিৎসকদের কাছে তিনি তার দিল্লি যাত্রার কথা গোপন করে যান। চিকিৎসকরা তাকে প্রথমে গৃহ পর্যবেক্ষণে থাকার নির্দেশ দেন। কিন্তু তা অমান্য করে দেদার এধার অধার ঘুরে বেড়িয়েছিলেন ওই ব্যক্তি। এরফলে আতঙ্কিত হয়ে স্থানীয়রা স্বাস্থ্য দপ্তরকে খবর দেয় এবং তার নিজামুদ্দিন যোগ দেওয়ার কথা জানায়। এরপর পূর্ব মেদিনীপুর জেলা স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীরা ওই ব্যক্তিকে ৩১ মার্চ হলদিয়া মহকুমা হাসপাতালে আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করে। শরীরের মধ্যে করোনা উপসর্গ দেখা দেওয়ায় ২মার্চ স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফ থেকে তার লালা রস সংগ্রহ করে কলকাতায় পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। এরপরই বৃহস্পতিবার রাতে স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফ থেকে রিপোর্ট পাওয়ার পর জানা যায় দিল্লির নিজামুদ্দিনে যোগ দেওয়া ওই ব্যাক্তি করোনা আক্রান্ত। এরপরই সঙ্গে সঙ্গে বৃহস্পতিবার রাতে তাকে বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। এদিকে ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা আরোও কারোর মধ্যে করোনা সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখছে স্বাস্থ্য দপ্তর। ইতিমধ্যে ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা ৫ জন বন্ধু ও ব্যক্তির পরিবারের ৯ জন সদস্যকে হলদিয়া মহকুমা হাসপাতালের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যেও করোনা সংক্রমণ হয়েছে কিনা সে ব্যাপারে নিশ্চিত হতে স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফ থেকে তাদের লালারস সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে। বৃহস্পতিবার রাতের এই খবরটা হলদিয়া এলাকায় ছড়িয়ে পড়তেই ব্যাপক আতঙ্কের সৃষ্টি হয় এলাকায়। কারণ ওই ব্যক্তি হলদিয়া বন্দরের একটি বেসরকারি সংস্থার কর্মী ছিলেন। ব্যাক্তি কর্মসূত্রে হলদিয়াতে থাকলেও আদতে তিনি তেলেঙ্গানার বাসিন্দা। দিল্লি থেকে ফেরার পর ওই ব্যক্তি কর্মস্থলেও গিয়েছিলেন।  আর এর ফলে ব্যাপক আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে হলদিয়া বন্দরেও। ইতিমধ্যে হলদিয়া বন্দরের তরফ থেকে সিসিটিভি ফুটেজ থেকে ওই ব্যক্তির গতিবিধি জানার চেষ্টা চলছে। তবে বন্ধ কর্মীদের কোনরকম আতঙ্কিত না হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে বন্দর কর্তৃপক্ষ। জানা গেছে, কর্মসূত্রে ওই ব্যক্তি হলদিয়া পুরসভার ১৫ নম্বর ওয়ার্ডের  দেভোগে একটি ভাড়া বাড়িতে থাকতেন। প্রথমে তিনি দিল্লির ধর্মীয় সম্মেলনে যোগ দেয়ার কথা অস্বীকার করলেও পরে তা স্বীকার করেন।
পূর্ব মেদিনীপুর জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক নিতাই চন্দ্র মন্ডল বলেন, “নিজামউদ্দিন থেকে ফেরা যুবক করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তার সংস্পর্শে থাকা মোট ১৪ জনকে হলদিয়া মহকুমা হাসপাতালে আইসোলেশন বিভাগে রাখা হয়েছে। তাদের লালা রস সংগ্রহ করে কলকাতায় ল্যাবে টেস্টের জন্য পাঠানো হচ্ছে”।
সবমিলিয়ে পূর্ব মেদিনীপুর জেলায় ইতিমধ্যে চারজন ব্যক্তি করোনা আক্রান্ত হওয়ায় এখন আতঙ্ক ছড়িয়েছে ব্যাপক আকারে। সকলকে সতর্ক থাকার পরামর্শ দিচ্ছে প্রশাসন।
Spread the love