আজকের সারাদিন করোনা কলকাতা দেশ প্রথম পাতা

করোনায় বেতন কমছে রাষ্ট্রপতি-রাজ্যপাল থেকে মন্ত্রীদের, বন্ধ সাংসদ তহবিলের বরাদ্দ ।

করোনা সংকটের সময় নিজেদের বেতন হ্রাসে সম্মত হলেন রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী-সহ সব কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, উপরাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, সব রাজ্যের রাজ্যপালরা এক বছরের জন্য ৩০% বেতন হ্রাসে সম্মত হয়েছেন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা এই সংক্রান্ত অর্ডিন্যান্সে অনুমোদন দিয়েছ।
সংকটের সময় একই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সব কেন্দ্রীয় মন্ত্রীও। এই অর্থ দেশের করোনাভাইরাসের জন্য তহবিলে জমা পড়বে বলবে জানানো হয়েছে। সোমবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর এ কথা ঘোষণা করা হয়েছে সরকারের তরফে।
দু বছরের জন্য এমপি সাংসদ তহবিলও স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে মন্ত্রিসভার বৈঠকে। সাংসদদের দেয় এলাকা উন্নয়ন তহবিল থেকে ৭,৯০০ কোটি টাকা করোনা তহবিলে জমা পড়বে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী প্রকাশ জাভড়েকর।
এর আগে, তেলেঙ্গানা ও মহারাষ্ট্র করোনার কারণে বেতন গ্রাসের রাস্তায় হেঁটেছে। এই মাস থেকেই মুখ্যমন্ত্রী ও মন্ত্রিসভার বেতনহ্রাসের সিদ্ধান্ত নিয়েছে উদ্ধব ঠাকরের সরকার। করোনাভাইরাসের কারণে লকডাউনের জেরে যে আর্থিক সংকটজনক পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে, তা মোকাবিলা করতেই এই সিদ্ধান্ত বলে জানিয়েছে সরকার।
সরকার জানিয়েছে, মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে ও অন্যান্য বিধায়কদের বেতন ৬০% কমানো হয়েছে। এ ও বি গ্রেড অফিসারদের বেতনহ্রাস হবে ৫০%। তবে চতুর্থ শ্রেণির কর্মীদের বেতন ছাঁটা হবে না বলে সরকারের তরফে জানানো হয়েছে। চলতি বছর মার্চ থেকেই এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে বলে জানিয়েছেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অজিত পাওয়ার।
করোনাভাইরাসের কারণে প্রথম বেতনে কাটছাঁটের সিদ্ধান্ত নেয় তেলেঙ্গানা সরকার। তারা জানায়, এক্সিকিউটিভ, জনপ্রতিনিধি ও কর্মীদের বেতন ১০ থেকে ৭৫ শতাংশ পর্যন্ত কমানো হবে। সরকারি অনুদানপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান, রাষ্ট্রায়ত্ব সংস্থা, সরকারি কর্মী ও অবসরপ্রাপ্তদের বেতন ও পেনশনের ক্ষেত্রে এই কাটছাঁট হবে বলে জানিয়েছে সরকার।

Spread the love