করোনা দেশ প্রথম পাতা

করোনা রোগীর মৃতদেহ দীর্ঘক্ষন বাসস্ট্যান্ডে পড়ে থাকার অভিযোগ, মুখ্যমন্ত্রী অপসারণের দাবি বিধায়কের !

চূড়ান্ত গাফিলতির অভিযোগ উঠল গুজরাট সরকারের বিরুদ্ধে। করোনা রোগীর মৃতদেহ দীর্ঘক্ষন বাসস্ট্যান্ডে পড়ে থাকার অভিযোগ উঠেছে। এমনকি ওই রোগীর দেহ তার পরিবারকে হস্তান্তর করা হয় বলেও অভিযোগ মিলেছে। এ নিয়ে গুজরাট সরকারের পক্ষ থেকে কোনো বিবৃতি বা সদুত্তর মেলেনি। জানা গিয়েছে, ৬৭ বছরের ওই ব্যক্তি আহমেদাবাদের সিভিল হাসপাতালে ভরতি হয়েছিলেন গত ১০ মে। দুদিন বাদে তাঁর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসে। ওই ব্যক্তির ছেলে জানিয়েছেন, ‘১৫ মে আমাকে পুলিশ ফোন করে জানায় যে আমার বাবার মৃতদেহ দানিলিমদা ক্রসিংয়ের কাছে একটি বাসস্ট্যান্ডে পাওয়া গিয়েছে।’ হাসপাতালের ওএসডি ডা. এমএম প্রভাকর সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, ‘রোগীর মৃদু উপসর্গ ছিল। নয়া গাইডলাইন অনুযায়ী তিনি বাড়িতে আইসোলেশনে থেকে সুস্থ হয়ে উঠতে পারেন।

গত ১৪ মে তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছুটি দিয়ে দেওয়া হয়। তখন তিনি সুস্থই ছিলেন।’ তিনি আরও জানিয়েছেন, ‘হাসপাতালের একটি বাসে তাঁকে বাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়। তাঁর বাড়ির কাছে রাস্তায় যানজটের কারণে তাঁকে কাছাকাছি একটি বাসস্ট্যান্ডে নামিয়ে দেওয়া হয়।’ এছাড়াও অভিযোগ ওই ব্যক্তির পরিবারকে না জানিয়েই তাঁকে ছুটি দেওয়া হয়। পরে ওই রোগীর মৃতদেহ পরিবারকে হস্তান্তর করা হয় এবং প্লাস্টিকে মুড়ে সৎকার করার নির্দেশ দেওয়া হয়। যেখানে করোনা আক্রান্ত রোগীর দেহ যেখানে গাইডলাইন মেনে সৎকার করার কথা। বিধায়ক জিগনেশ মেওয়ানি মুখ্যমন্ত্রীর অপসারণের দাবি তুলেছেন। প্রাক্তন অতিরিক্ত মুখ্য স্বাস্থ্যসচিব এই ঘটনার তদন্ত করছেন। আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে রিপোর্ট তলব করেছেন মুখ্যমন্ত্রী বিজয় রুপানি

Spread the love