জেলা

দীর্ঘ জট কাটিয়ে আজ রাজ্যে সভা করতে আসছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুলগান্ধি

নিজস্ব প্রতিনিধি— সমস্ত জট কাটিয়ে আজ শনিবার উত্তর মালদার চাঁচোলে দীর্ঘদিন পর সভা করতে আসছেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধি।

খাতায় কলমে উত্তর মালদা এখনও কংগ্রেসের দখলে থাকলেও, সেখানকার বর্তমান সাংসদ মৌসুম বেনজির নুর কিছুদিন আগে কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিয়েছে এবং আসন্ন লোকসভা ভোটে উত্তর মালদা কেন্দ্র থেকে তৃণমূলের হয়ে লড়ছেন তিনি। অপরদিকে কংগ্রেসের হয়ে লড়ছেন মৌসমের সম্পর্কে ভাই ঈশা খান। স্বাভাবিক ভাবেই মালদহ উত্তর আসনে সোমেন-ডালুদের লড়াই যত না বিজেপি-র বিরুদ্ধে তার বেশি তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

এমতাবস্থায় আজকের সভা থেকে কংগ্রেস সভাপতি কি বার্তা দেবেন সে দিকেই তাকিয়ে রয়েছে রাজ্যের কর্মী-সমর্থকেরা। একই সঙ্গে জোট-বার্তা নিয়ে কি পথ অবলম্বন করেন তাও জানতে আগ্রহী কংগ্রেস কর্মীরা।

এদিকে, কংগ্রেস সভাপতির সভার জন্য মালদহ জুড়ে যে ব্যানার, পোস্টার লাগানো হয়েছে, তাতে মোদ্দা বক্তব্য—দুর্দিনে বরকত সাহেব কিন্তু কংগ্রেস ছাড়েননি। বিশ্বনাথ প্রতাপ সিং রেলমন্ত্রী হওয়ার প্রস্তাব দিলেও না। বরং বলতেন, কংগ্রেসের পতাকা গায়ে দিয়েই মরতে চান তিনি। বস্তুত কংগ্রেস ও বরকতের সম্পর্ক মালদহে কিম্বদন্তি। স্থানীয়রা বলেন, ‘বুড়ার বাড়ি যত লোক সব কংগ্রেস!’ শুধু পোস্টার লাগানো নয়, প্রদেশ কংগ্রেস সূত্রে খবর, বক্তৃতার জন্য প্রদেশ নেতৃত্ব রাহুল গান্ধীকে যে ‘টক পয়েন্ট’ পাঠিয়েছেন, তাতেও তৃণমূল কংগ্রেস সম্পর্কে বিস্তর সমালোচনার কথা লেখা রয়েছে। এও বলা হয়েছে, বাংলায় বিভাজনের রাজনীতির জন্য বিজেপি যতটা দায়ী, ততটাই দায়ী কংগ্রেস। তালি এক হাতে বাজেনি, বেজেছে দু’হাতে।

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।