প্রথম পাতা স্বাস্থ্য

জ্বর কি ঠান্ডা-গরমের ‘ভাইরাল ফিভার’ নাকি ‘ডেঙ্গি’! ডেঙ্গির কয়েকটি লক্ষণ…

নিজস্ব প্রতিনিধি : প্রতিদিনই একটু একটু করে চড়ছে তাপমাত্রার পারদ! এমনিতেই এখন আবহাওয়া পরিবর্তনের ফলে ঠান্ডা-গরমে ঘরে ঘরে জ্বর-জ্বালা শুরু হয়েছে। তার উপর তাপমাত্রা বাড়তেই ফের বেড়েছে মশার উপদ্রব। মশার উপদ্রব বাড়তেই ফিরেছে ডেঙ্গির আতঙ্ক। অনেকের মনেই এখন একটা আতঙ্ক দানা বাঁধতে শুরু করেছে, এই জ্বর কি ঠান্ডা-গরমের ভাইরাল ফিভার’, নাকি ডেঙ্গি!এ দিকে তাপমাত্রা তেমন ভাবে না বাড়লেও, কমে যাচ্ছে প্লেটলেট কাউন্ট! তাই আগে চিনে নেওয়া যাক, ডেঙ্গির কয়েকটি লক্ষণ…

১) ডেঙ্গি জ্বরে রক্তে অনুচক্রিকা বা প্লেটলেট কাউন্ট দ্রুত কমে যেতে শুরু করে।

২) সাধারণ ভাইরাল ফিভারের মতো ডেঙ্গি হলেও গা-হাত-পায়ে মারাত্মক ব্যথা করে। সঙ্গে মাথার যন্ত্রণাও হতে থাকে।

৩) ডেঙ্গি জ্বরে শরীরের বিভিন্ন অংশ থেকে রক্তক্ষরণ হতে পারে।

৪) ডেঙ্গি হলে সারা গায়ে, ত্বকের উপর লাল লাল র‍্যাশ দেখা দেয়।

৫) ডেঙ্গি জ্বরে অনেকের গা-হাত-পায়ে মারাত্মক ব্যথা করতে থাকে। এই জন্যই ডেঙ্গি জ্বরের আর এক নাম ব্রেক বোন ফিভার

৬) ডেঙ্গি জ্বরে শরীরে ব্যথা-বেদনার সঙ্গে সঙ্গে অনেকের চোখেও খুব ব্যথা করতে পারে।

৭) ডেঙ্গি জ্বরে নাক, মাড়ি বা প্রস্রাবের সঙ্গে রক্তক্ষরণ হতে পারে।

৮) ডেঙ্গি জ্বরে গলা ব্যথা, জ্বালা আর সর্দি থাকতে পারে।

৯) ডেঙ্গি জ্বরের আর একটি উপসর্গ হল মারাত্মক পেটে ব্যথা আর গা বমি বমি ভাব বা বমি হওয়া। এর সঙ্গে পেট খারাপও হতে পারে।

সাধারণ ভাইরাল ফিভারের সঙ্গে ডেঙ্গি বিশেষ একটা তফাত নেয় তাহলেও ইদানীং যেহেতু এই জ্বরের প্রকোপ বেড়েছে তাই জ্বর ৪৮ ঘন্টা পেরলেই কোনও ঝুঁকি না নিয়ে চিকিত্সকের কাছে যান। চিকিত্সকের পরামর্শ মেনে প্রয়োজনে রক্ত পরীক্ষা করিয়ে নিন। মনে রাখবেন, চিকিতসকের পরামর্শ ছাড়া কোনও ওষুধ খাওয়া চলবে না।

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।