করোনা কলকাতা প্রথম পাতা

করোনা মোকাবিলায় ক্যাবিনেট কমিটি গঠন মুখ্যমন্ত্রীর, কেন্দ্রের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ মমতার!

করোনা পরিস্থিতি নিয়ে নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় কেন্দ্রকে সরাসরি আক্রমণ করে জানালেন,”কেন্দ্র যা বলছে, তাতে ক্ল্যারিটির অভাব আছে। আমি মুখ্যসচিবকে বলেছি ক্যাবিনেট সেক্রেটারিকে চিঠি পাঠাতে যাতে একটা ক্ল্যারিটি দেয় আমাদের।” পাশাপাশি তিনি বলেন, “হঠাৎ করে আমাদের সার্কুলার দিয়ে দিচ্ছে। তাতে আমাদের কোনও আপত্তি নেই। কিন্তু রাজ্যের সঙ্গে আলোচনা করতে হবে। নাহলে কোনটা করব?

” প্রসঙ্গত কেন্দ্র এক নির্দেশিকায় জানিয়েছে, প্রতিটি রাজ্যে সেলুন দোকান থেকে মুদিখানা দোকান সবকিছুই খোলা রাখা যেতে পারে। কিন্তু এ বিষয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগের সুরে বলেন, “দোকান খুলে দেওয়া হলেই লোকজনের ভিড় বাড়বে। সেক্ষেত্রে সংক্রমণের আশঙ্কা বাড়বে, দোকান খুললে লোককে কী করে বলব, দোকানে যাবেন না?” পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন, রাজ্যের যা পরিস্থিতি সেক্ষেত্রে কেউ করোনা আক্রান্ত হলে বাড়িতেই থাকতে পারেন। এবিষয়ে প্রয়োজনীয়

গাইডলাইন রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হবে। অবশ্য সেইসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, যে বাড়ির সদস্য সংখ্যা দশ বা তার বেশি অথবা যাদের ঠিকমত থাকার জায়গা নেই, তাদের হাসপাতালে চিকিৎসা করানো হবে। পাশাপাশি সব রকমের সাহায্য করবে রাজ্য সরকার। কোভিড ম্যানেজমেন্টের জন্য ক্যাবিনেট কমিটি তৈরি করা হয়েছে। অমিত মিত্র চেয়ারম্যান সেই কমিটির। এছাড়াও কমিটিতে থাকবেন পার্থ, ববি, চন্দ্রিমা, মুখ্যসচিব, স্বাস্থ্যসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিব। রাজ্যে কটোনা মোকাবিলায় এই কমিটি সরাসরি ভূমিকা পালন করবে।

রাজ্যে করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রথম চিকিৎসকের মৃত্যু ।

প্রয়োজনীয় প্রতিটি পদক্ষেপ গ্রহণ করবে ক্যাবিনেট কমিটি। কোঅর্ডিনেশন করবেন সেলিম। এছাড়াও গত ২১ দিনে যেখান থেকে পজ়িটিভ কেস আসেনি, সেখানে লকডাউন হাল্কা হবে। পজ়িটিভ এলে আবার কড়া হবে। নন-এসেনশিয়াল সার্ভিসেও হোম ডেলিভারি চালু করলাম। কেন্দ্রকে টাকা ক্লিয়ার করতে হবে। শুধু ভাষণে হবে না। রেশন লাগবে। জানা গিয়েছে, গতকাল পর্যন্ত অ্যাকটিভ ছিল ৪৬১ জন।আজ রাজ্যে করোনা অ্যাকটিভ ৫০৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্ত ৪৭ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়ে ছাড়া পেয়েছেন ৪ জন।

মোট সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১০৯ জন। এখনও পর্যন্ত মারা গেছেন ২০ জন। মোট স্যাম্পেল টেস্ট হয়েছে ১২ হাজার ৪৩টি।
১১৫০টি শুধু গতকাল টেস্ট হয়েছে। সরকারি কোয়ারেন্টাইনে আছেন ৫৪৪৭ জন। হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন ১৮ হাজার ৬২৯ জন। বাড়িতে বাড়িতে স্ক্রিনিং চলছে। পাশাপাশি মুখ্যমন্ত্রী দাবি করেছেন, উত্তরপ্রদেশের পরেই বাংলা জনবহুল রাজ্য। ফ্লাইট বেশি চলে, ট্রেন বেশি চলে। ফলে এটা সেনসিটিভ রাজ্য। এছাড়াও মুখ্যমন্ত্রী জানান, আজ প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে তাঁর কোনও কথা বলা সম্ভব হয়নি। ফলস্বরূপ রাজ্যের পরিস্থিতি সম্পর্কে কেন্দ্রের সঙ্গে কোনও আলোচনা হয়নি।

Spread the love