কলকাতা প্রথম পাতা

২১শে জুলাই স্তব্ধ হবে তো কলকাতা? আশঙ্কার কালো মেঘ নিয়েই ‘শহীদ দিবসের মঞ্চ’ বাঁধছে তৃণমূল

নিজস্ব প্রতিনিধি: লোকসভা ভোটে খানিক ব্যাকফুটে চলে গিয়েছে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। ঘাঁড়ে নিঃশ্বাস ফেলছে বিজেপি। লোকসভা নির্বাচনে রাজ্য থেকে এবার ১৮ আসন নিয়ে বাংলা জয়ের ঘুঁটি সাজাচ্ছে বিজেপি নেতৃ্ত্ব। কিন্তু ফের ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া তৃণমূলও। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিষ্কার জানিয়েছেন, মানুষের ওপর ভরসা রেখেই ফের তাঁর সরকারই ক্ষমতায় ফিরবে। কিন্তু এবার নির্বাচনের পর তৃণমূলের প্রথম বড় সভা বলতে ২১শে জুলাই। শহিদ মঞ্চ। বলা ভালো তৃণমূলের শক্তিপরীক্ষা। কিন্তু এবারের ২১শে জুলাইয়ের প্রস্তুতি খানিক ফিঁকে দেখাচ্ছে। অনেকেই বলছেন, এবারের সেই উন্মাদনা এখনও দেখা যাচ্ছে না শাসক নেতাদের মধ্যেই। শুধু তাই নয় তৃণমূলের অন্দরে কানাঘুষো শোনা যাচ্ছে যে প্রতিবারের মতো এবারের ২১শে জুলাই অতীত সব রেকর্ড ভাঙতে পারবে তো নাকি লোক মুখ ফিরিয়ে রাখবে ২১শের মঞ্চ থেকেই। প্রশ্ন অনেক তবে উত্তর কারুর জানা নেই। গত প্রায় দশ-বারো বছর ধরে একুশে-র ছবিটা কম বেশি একই রকম। জুলাইয়ের তৃতীয় সপ্তাহে ওই সভার অন্তত এক মাস আগে থেকে জেলায় জেলায় প্রস্তুতি বৈঠক শুরু হয়ে যায়।

জেলা স্তরে সভা সমাবেশ ডাকা হয়। আর তাতে নেতৃত্ব দেন, সুব্রত বক্সী, পার্থ চট্টোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম, শুভেন্দু অধিকারী, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মতো দলের হেভিওয়েট নেতারা। শুধু তা নয়, সমাবেশের মাত্র দু’সপ্তাহ বাকি। এত দিনে কলকাতা শহর ছেয়ে যায় একুশের পোস্টার, ব্যানারে। মেট্রোর সমস্ত পিলারে লাগানো হয়ে যায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের হোর্ডিং। আর ২১শে জুলাই স্তব্ধ হয়ে পড়ে কলকাতা। সবার মুখেই যেন একটাই স্লোগান ধর্মতলা চলো।জেলায়-মফস্বল শহরেও মমতার ছবি দেওয়া হোর্ডিংয়ে ছয়লাপ হয়ে যায়।কিন্তু এখনও সেই অর্থে গাঁ ঝেড়ে ময়দানে নামেন নি তৃণমূল নেতা-মন্ত্রীরা। তৃণমূলের একাংশ নেতার মতে, লোকসভা ভোটে আঠারোটা আসন হারিয়ে দলের মনোবলে জোর ধাক্কা লেগেছে। এতটাই যে একুশের সভা নিয়েও উৎসাহে ভাটা পড়েছে।হিসাব মতো একুশে জুলাইয়ের সমাবেশে প্রতি বছর উত্তরবঙ্গ থেকে বিপুল সংখ্যক কর্মী সমর্থক আসেন। এ বার উত্তরবঙ্গে ধুয়ে মুছে গেছে তৃণমূল। দার্জিলিং থেকে মালদহ পর্যন্ত একটা আসনেও জেতেনি। ফলে উত্তরবঙ্গ থেকে এ বার সেরকম লোক আসবে না বলেই আশঙ্কা রয়েছে। একই ভাবে পশ্চিমাঞ্চল তথা ঝাড়গ্রাম, পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, পুরুলিয়াতেও একুশের সভা নিয়ে উৎসাহে ভাটা রয়েছে। প্রশ্ন হল, তা হলে কি এবার বিরোধীদের কথা মতোই ধর্মতলায় শহীদ মঞ্চে ভাটা পড়বে লোকের? উত্তরটা অবশ্য জানা যাবে ২১শের সকালেই।

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।