কলকাতা প্রথম পাতা

তৃণমূলে থেকে ‘কাটমানি’ খেয়ে বিজেপিতে নাম লেখানো যাবে না! দিলীপের হাতে ঝাড়াই-বাছাইয়ের দায়িত্ব দিয়ে দলের নীতি বোঝালেন কৈলাস

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজ্যে নিজেদের বহর বাড়াচ্ছে বিজেপি। গতবারের লোকসভা নির্বাচনে ২টি আসন থেকে একধাক্কায় ১৮ আসনে পৌছে গিয়েছে গেরুয়া বাহিনী। বিজেপির দাবি, তাদের দলে নাম লেখানোর জন্য মুখিয়ে আছেন শাদকদলের একাধিক নেতা-মন্ত্রী। এমনকি লোকসভা ভোটের পর থেকেই তৃণমূল ছাড়ার হিড়িক পড়ে গিয়েছে। তবে বিজেপির একাংশের দাবি, তৃণমূল থেকে দুর্নীতি করে বিজেপিতে চলে আসছে এমন নেতা-কর্মীও চোখে পড়ছে রাজ্যের প্রায় অনেক জায়গাতেই। জেলার বিভিন্ন জায়গায় দেখা গিয়েছে, শাসকদলে কাটমানি খেয়ে বিজেপিতে নাম লেখানো নেতার বাড়িতেই চড়াও হচ্ছেন বিজেপি কর্মী সর্মথকরাই।

এহেন পরিস্থিতিতে আসরে নামলেন দিলীপ-কৈলাসরা। যে সব তৃণমূল কংগ্রেস নেতাদের বিরুদ্ধে কাটমানি নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে তাদের দলে নেবে না বিজেপি। সদস্যতা অভিযানের মধ্যেই এমন ঘোষণা করলেন রাজ্যে বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয়। রবিবার সদস্যতা অভিযান নিয়ে কলকাতায় এক দলীয় বৈঠকে হাজির ছিলেন বিজেপির সাংসদ ও বিধায়করা। হাজির ছিলেন রাজ্য নেতারা। আর সেখানেই কৈলাশ বলেন, “তৃণমূল কংগ্রেসের অনেক নেতা, বিধায়ক মন্ত্রী বিজেপিতে যোগ দিতে চাইছেন। কিন্তু যাঁরা কাটমানি নেওয়ায় অভিযুক্ত তাঁদের বিজেপিতে জায়গা হবে না।” একই সঙ্গে তিনি বলেন, কাদের নেওয়া হবে আর কাদের হবে না সেটা যাচাই করবেন খোদ রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ।যবে থেকে কাটমানি ইস্যু সামনে এসেছে তবে থেকেই তৃণমূল কংগ্রেস নেত্রী বলছেন, অভিযুক্তরাই বিজেপিতে যেতে চাইছে। এর পর থেকে নানা বিতর্ক তৈরি হতে থাকে। এদিন বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক স্পষ্ট করে দিলেন দলের নীতি।

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।