দেশ প্রথম পাতা বিনোদন

বিজেপিতে নাম লেখালেন বলিউডের জয়াপ্রদা, লোকসভার টিকিটও কার্যত নিশ্চিত

নিজস্ব সংবাদদাতা: বলিউডের জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী জয়াপ্রদা যে বিজেপিতে যোগদান করতে পারেন, তা নিয়ে সোমবার থেকেই জল্পনা চলছিল। মঙ্গলবার বেলা বাড়ার পর সেই জল্পনাই সত্যি হল।মুলায়ম সিং যাদবের দল থেকে বিতাড়িত অভিনেত্রী জয়াপ্রদা এবার যোগদান করলেন বিজেপিতে। মঙ্গলবার নয়াদিল্লিতে বিজেপির প্রধান কার্যালয়ে গিয়ে গেরুয়া শিবিরে নাম লেখান।উত্তরপ্রদেশের রামপুর কেন্দ্রের প্রার্থী হওয়া নিয়ে জল্পনা ছড়িয়েছে বিজেপির অন্দরেই৷নতুন দলে যোগ দিয়ে উচ্ছসিত অভিনেত্রী৷ জানান, আজকের দিনটি তাঁর জীবনে খুবই স্পেশাল৷ সিনেমা হোক অথবা রাজনীতি সবক্ষেত্রেই নিজের সবটুকু দিয়ে আন্তরিক ভাবে কাজ করার চেষ্টা করেছি৷ বিজেপিকে ধন্যবাদ আমাকে সম্মানের সঙ্গে দলে টেনে নেওয়ার জন্য৷জয়া অতীতে বহুবার দলবদল করেছেন৷ ১৯৯৪ সালে তেলেগু দেশম দলে যোগ দিয়ে রাজনীতির ইনিংস শুরু করেন জয়া৷ পরে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী চন্দ্রবাবু নাইডুর সঙ্গে নানা কারণে মতবিরোধ হওয়ায় তিনি দল ছেড়ে দেন৷ এবং সমাজবাদী পার্টিতে যোগ দেন৷বলিউডের জনপ্রিয় এই অভিনেত্রী ২০০৪ সালে প্রথমবার লোকসভার সাংসদ হন।

উত্তরপ্রদেশের রামপুর লোকসভা আসন থেকে তিনি সমাজবাদী পার্টির টিকিটে ভোটে জেতেন। ২০০৯ সালেও তিনি ওই আসন ধরে রাখতে সক্ষম হন।সমাজবাদী পার্টিতেও তাঁর সঙ্গে দলীয় নেতৃত্বের মতবিরোধ তৈরি হয়। ২০১০ সালে তাঁকে মুলায়ম সিং যাদব দল থেকে বহিষ্কার করেন। ২০১৪ সালে তাই রাষ্ট্রীয় লোক দল থেকে বিজনৌর লোকসভার আসনে প্রার্থী হন জয়াপ্রদা। তবে এবার তাঁকে হারতে হয় বিজেপির প্রার্থীর কাছে।রামপুরে যদি বিজেপি তাঁকে প্রার্থী করে, তাহলে জমজমাট লড়াই হবে বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। কারণ, ওই আসনে সপার প্রার্থী আজম খান। আর এই আজম খানের সঙ্গে ২০০৯ সালেই বিবাদ বেঁধেছিল জয়াপ্রদার। তখন তাঁরা দুজনেই সপার সদস্য।তবে আজ বিজেপিতে নাম লিখিয়েই জয়া ঢালাও প্রশংসা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর। বলেছেন, টিডিপি ও সমাজবাদী পার্টিতে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি। এবার নরেন্দ্র মোদীর মতো নেতার সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেলাম। আমি নিজেকে দল ও দেশের জন্য উৎসর্গ করলাম।

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।