কলকাতা জেলা দেশ প্রথম পাতা

বিজেপির প্রার্থী তালিকা এখনও আটকে রয়েছে দিল্লিতে! বঙ্গ নেতাদের মাথায় হাত,২ আসনে মনোনয়ন জমা দেওয়ার জন্য হাতে আর ১দিন

নিজস্ব সংবাদদাতা: দেশজুড়ে লোকসভা ভোটের ঘন্টা বাজিয়ে দিয়েছে জাতীয় নির্বাচন কমিশন। সেইমত প্রস্তুতি নিতে শুরু করে দিয়েছে শাসক-বিরোধী সবপক্ষই। এবারের নির্বাচনে বাংলার দিকে বাড়তি নজর দিয়েছে বিজেপির শীর্ষনেতারা। কিন্তু বলা যায় কার্যত প্রথমে হোঁচট খেতে হল দিলীপ ঘোষ-মুকুল রায়দের। কমিশন ভোটের দিন ঘোষণার পরেই রাজ্যের ৪২ আসনের প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে বিরোধীদের প্রথমেই চাপে ফেলে দিয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।কিন্তু এখনও বিজেপির কোন প্রার্থী তালিকাই প্রকাশ করা হয় নি দিল্লি থেকে । আর নাম ঘোষণায় এই বিলম্বের জেরে অস্বস্তিতে বঙ্গ বিজেপির নেতারা। প্রথম দফায় বাংলার যে দুই আসনে ভোটগ্রহণ হবে, সেই আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহার কেন্দ্রের প্রার্থীরা মাত্র এক দিন সময় পাবেন মনোনয়ন জমা দেওয়ার জন্য। বুধবার যদি ঘোষিত হত প্রার্থীদের নাম, তা হলে মনোনয়ন জমার কাজ কিছুটা অন্তত এগিয়ে রাখা যেত। সে কথা মাথায় রেখে এ দিন বিকেলের আগেই প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করার জন্য কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের উপরে চাপ বাড়িয়েছিলেন বঙ্গ বিজেপির নেতারা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা আর হল না।

বুধবার দুপুরে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ বৈঠকে বসেন দিলীপ ঘোষ,মুকুল রায়, কৈলাস বিজয়বর্গীয়দের সঙ্গে। বিজেপি সূত্রের খবর, প্রথম তিনটি দফায় বাংলার যে ১০টি আসনে ভোটগ্রহণ হবে, এ দিন সেই আসনগুলি নিয়ে আলোচনা হয়েছে।প্রথম দফায় ভোট হবে আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহার আসনে। তার পরের দফায় দার্জিলিং, জলপাইগুড়ি এবং রায়গঞ্জে। আর তৃতীয় দফায় ভোট হবে বালুরঘাট, উত্তর মালদহ, দক্ষিণ মালদহ, জঙ্গিপুর ও মুর্শিদাবাদে। যত দ্রুত সম্ভব এই ১০ আসনের প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করার জন্য বিজেপি নেতৃত্ব তৎপর হয়েছেন বলে খবর।আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহারে ভোটগ্রহণ হবে প্রথম দফায়। ওই দুই আসনে মনোনয়ন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ২৫ মার্চ অর্থাৎ সোমবার। কিন্তু সোমবারের আগে যে চারটে দিন পড়ে রয়েছে, তার মধ্যে ২১ ও ২২ মার্চ দোল এবং হোলির ছুটি। ২৩ ও ২৪ মার্চ সপ্তাহান্তিক ছুটি অফিস-কাছারিতে। অর্থাৎ মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার জন্য শুধু সোমবারটাই থাকছে বিজেপির হাতে। ওই দিনেই আদালতে গিয়ে হলফনামা জমা করতে হবে। তার পরে জেলাশাসকের দফতরে গিয়ে জমা দিতে হবে মনোনয়নপত্র। দুটো কাজই সময় সাপেক্ষ। এক দিনে ওই দুটো কাজ করা যাবে কি না, তা নিয়ে সংশয় তৈরি হয় রাজ্য বিজেপিতে। তাই বুধবার বিকেলের আগেই আলিপুরদুয়ার এবং কোচবিহারের প্রার্থীদের নাম অন্তত ঘোষণা করে দেওয়ার জন্য কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের উপরে চাপ বাড়ায় রাজ্য বিজেপি।কিন্তু তাতেও সায় দেয় নি বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব।এখনও বিজেপির তরফে তাদের নামের কোন তালিকাই প্রকাশ করা হয় নি।তবে হাতে যে আর বেশী সময় নেই তা ভালো মতোই বুঝতে পারছেন বঙ্গের বিজেপি নেতারা। কিন্তু প্রার্থী তালিকা চূড়ান্ত ঘোষণার জন্য এখনও শীর্ষনেতৃত্বের দিকেই তাকিয়ে থাকতে হচ্ছে বঙ্গের বিজেপি নেতাদের।

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।