জেলা প্রথম পাতা

প্রার্থী নিজেই পরিচিতি দিচ্ছেন নিজের, নিজেদের গড় ধরে নিয়েই ঝাড়গ্রামে তৃণমূলকে মোকাবিলা করতে তৈরী হচ্ছে বিজেপি

নিজস্ব প্রতিনিধি: দেড় বছর হয়েছে রাজনীতির ময়দানে নেমেছেন। তবে এই প্রথমবার ভোট যুদ্ধের ময়দানে নেমেছেন ঝাড়্গ্রাম লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী বিজেপির প্রার্থী কুনার হেম্ব্রম। বর্তমানে ঝাড়্গ্রাম জেলায় এক নম্বর বিরোধী হিসেবে পরিচিত বিজেপি। তাই লোকসভা নির্বাচনে জিততে  বদ্ধপরিকর বিজেপি। নাম ঘোষণা হওয়ার পর থেকেই ঝাড়গ্রাম আসনের প্রার্থীকে নিয়ে জোর কদমে প্রচার শুরু করেছে। রবিবার ছুটির দিনটিতে ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপির পক্ষ থেকে প্রার্থী কুনার হেমরমকে নিয়ে লাগাতর সাংগাঠনিক বৈঠক করছে ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপির নেতৃত্ব।এদিন নয়াগ্রাম ব্লকের দুটি এবং গোপীবল্লভপুর এক ব্লকের দুটি মন্ডলকে নিয়ে মোট চারটি সাংগাঠনিক বৈঠক হয়।নয়াগ্রাম ব্লকের খড়াকামথানি,চাঁদাবিলাতে এবং গোপীবল্লভপুর এক ব্লকের ছাতিনাশোল এবং সাতমাতে কর্মীদের নিয়ে বৈঠক হয়।ঝাড়গ্রাম আসনে বিজেপি প্রার্থী কুনার বাবুকে নিয়ে বিজেপি বর্তমানে কর্মীদের সঙ্গে পরিচিত করাচ্ছে।প্রার্থী নিজে পরিচয় দিয়ে নিজের সম্পর্কে জানাচ্ছেন কর্মীদেরকে।প্রতিটি বুথে বুথে ব্যাপক লিডে জেতার লক্ষ মাত্রা বেধে দেওয়া হচ্ছে কর্মীদের বলে জানা গিয়েছে দলীয় সূত্রে।প্রতিটি বিজেপি কর্মী বিশেষত বুথ স্তর থেকে শুরু করে একেবারে অঞ্চল,ব্লক পর্যন্ত কর্মীদের রাজনৈতিক প্রচার চালিয়ে যাওয়ার জন্য নির্দেশ দিচ্ছে দল।প্রতিটি কর্মী বৈঠকে উপস্থিত থাকচ্ছেন বিজেপি প্রার্থী। এদিন নয়াগ্রাম এবং গোপীবল্লভপুরে এক ব্লকে কর্মী সভা গুলিতে প্রার্থীর সাথে  উপস্থিত ছিলেন ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপির সভাপতি সুখময় শতপথি,জেলা যুব মোর্চার সভাপতি অনুরণ সেনাপতি সহ বিভিন্ন নেতৃত্ব।

ঝাড়গ্রাম আসনে নাম ঘোষনা হওয়ার পরেই শনিবার বিজেপি প্রার্থী কুনার হেমরম ঝাড়গ্রাম শহরে পথ চলতি মানুষজনের সাথে নিজে দাঁড়িয়ে থেকে আলাপ সারেন,নিজের পরিচয় দিয়ে বিজেপিকে সুযোগ দেওয়ার আহ্বান করেছিলেন।পরে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার গোয়ালতোড়,চন্দ্রকোনা রোডে দালীয় কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করেছিলেন।এদিন রবিবার দলের নেতৃত্বের সাথে এক যোগে জেলার দুটি ব্লকে সাংগঠিনক বৈঠক করেন এবং তৃণমূলকে হারাতে কর্মীদেরকে নিয়ে জোর প্রচারের রূপরেখা তৈরি হয় এইসব বৈঠক থেকে বলে জানা গিয়েছে।পাশাপাশি রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে কেন্দ্রের মোদী সরকারের বিভিন্ন জনমুখি প্রকল্প গুলি আরো বেশি করে মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচারে জোর দেওয়া হচ্ছে বলে জনা গিয়েছে বিজেপির দলীয় সূত্রে।এবার পঞ্চায়েত নির্বাচনে বিজেপি ঝাড়গ্রাম জেলায় যথেষ্ট ভালো ফল করেছে।জেলার অনেক গুলি পঞ্চায়েত দখল করেছে,দুটি পঞ্চায়েত সমিতি দখল করেছে।জেলা পরিষদের সদস্যও রয়েছে।শাসক বিরোধী দল হিসেবে উঠে এসেছে। ফলে এবার লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল এবং বিজেপির মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে বলে মনে করছে তথ্যাবিঞ্জ মহল।ঝাড়গ্রাম জেলা বিজেপি যুব মোর্চার সভাপতি অনুরণ সেনাপতি বলেন “আমারা এদিন প্রার্থীকে নিয়ে দুটি ব্লকের মোট চারটি মন্ডলের কর্মীদের নিয়ে সাংগঠনিক বৈঠক করেছি।লোকসভা নির্বাচনে প্রচার সহ বিভিন্ন বিষয় গুলি আলোচনা হয়।”

   

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।