কলকাতা দেশ প্রথম পাতা

বিজেপি বড়লোক-ই! কংগ্রেস-সিপিএমকে সামনে দিয়েও তৃণমূল রইল সেই ‘গরীব পার্টি’ হয়েই

নিজস্ব প্রতিনিধি: দেশ চালানোর দায়িত্ব দ্বিতীয়বারের জন্য কাঁধে তুলে নিয়েছেন নরেন্দ্র মোদী। বলা যায় মোদী-অমিত শাহ জুটির ওপর ভর করেই দেশের প্রায় অধিকাংশ রাজ্যেই গেরুয়া পতাকা উড়িয়েছে বিজেপি। কিন্তু যত বেড়েছে দলের বহর ততই বেড়েছে দলের ধনসম্পদের পরিমানও। এক তথ্য বলছে, বতর্মান পরিস্থিতিতে দেশের সব রাজনৈতিক দলের মধ্যে ধনী দল হিসাবে সবাইকে অনায়াসে পিছনে ফেলে দিয়েছে বিজেপি। প্রশ্ন উঠছে সত্যিকি বিজেপি বড়লোকের পার্টি? তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অবশ্য বলেন, বিজেপির মতো বড়লোক পার্টি তৃণমূল নয়।ওদের মতো অত টাকাও তৃণমূলের নেই।  ব্যালেন্স শিট বলছে, বিজেপি-র তুলনায় গরিব বটে তৃণমূল। হিসাবমতো সর্বভারতীয় সাতটি দলের মধ্যে বিজেপি-র সম্পদের পরিমাণ এখন সর্বাধিক। মোট ১৪৮৩.৩৩ কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে বিজেপি-র। ২০১৬-১৭ আর্থিক বছরের তুলনায় ২০১৭-১৮ আর্থিক বছরে ২২ শতাংশেরও বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে মোদী-অমিত শাহ-র দলের সম্পত্তি বা তার মূল্য।

সেই তুলনায় গত ৬ দশক ধরে দেশে ক্ষমতার তখতে থাকলেও কংগ্রেসের সম্পত্তির পরিমাণ কম। বলতে গেলে বিজেপি-র তুলনায় এই সাবেক দলের সম্পত্তি এখন অর্ধেক। মোট ৭২৪.৩৫ কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে কংগ্রেসের। বিজেপি-র সম্পদ যখন ২২ শতাংশ বেড়েছে, তখন কংগ্রেসের সম্পদ কমে গিয়েছে ১৫ শতাংশের বেশি।অবাক কাণ্ড, বিজেপি-কংগ্রেসের পরই মোট সম্পদের নিরিখে তিন নম্বরে রয়েছে মায়াবতীর বহুজন সমাজ পার্টি। জাতীয় রাজনীতির আঙিনায়  বসপার রাজনৈতিক পরিচয় অন্ধকারে চলে যাচ্ছে। লোকসভা হোক বা  বিধানসভা কোন ভোটেই প্রাসঙ্গিক হতে পারছে না মায়াবতীর দল। কিন্তু তাতে কি এ সব সত্ত্বেও মায়াবতীর দলের সম্পত্তি ৬৮০ কোটি টাকা থেকে বেড়ে ২০১৭-১৮ সালে ৭১৬ কোটি টাকা হয়েছে। এর পরই চতুর্থ স্থানে রয়েছে সিপিএম। ২০১৭-১৮ সালে যখন ব্যালেন্স শিট পেশ করা হয়েছে তখন কেরলের পাশাপাশি ত্রিপুরাতেও ক্ষমতায় ছিল সিপিএম। হিসাব বলছে, সিপিএমের সম্পত্তির পরিমাণ ৪৮২ কোটি টাকা। তুলনায় অনেক দূরেই রয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল। অ্যাসোসিয়েশন অব ডেমোক্র্যাটিক রিসার্চের (এডিআর) দেওয়া হিসাব অনুযায়ী মাত্র ২৯ কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে তৃণমূলের। ২০১৬-১৭ আর্থিক বছরের তুলনায় তার পরের বছর ৩ কোটি টাকারও কম সম্পত্তি বেড়েছে।তবে রাজনৈতিক মহল মনে করছে, কংগ্রেস দেশের মধ্যে অনেক পুরোনো দল। তাদের সম্পত্তি কম থাকার কোন কারণ হয় না। যদিও মনে করা হচ্ছে দেশের সব রাজ্যে কংগ্রেসের সম্পত্তি চলে গিয়েছে কোন ট্রাস্টি বা প্রশাসনের হাতে। তাই রেকর্ডে বিজেপির থেকে অর্ধেক হয়ে গিয়েছে কংগ্রেস।সেই তুলনা টেনে বলা যায়, কংগ্রেস-বিজেপির থেকে অনেক নবীন দল তৃণমূল। সর্বভারতীয় বলা হলেও রাজ্যের গন্ডিতেই আপাতত জোড়াফুলের পতাকা ধরে রেখেছেন শাসকদলের নেতা-নেত্রীরা।তাই তাদের ক্ষেত্রে সম্পত্তির পরিমান কম থাকাটাই স্বাভাবিক।

 

 

 

Spread the love