জেলা প্রথম পাতা লগডাউন

হাসনাবাদে রেশন বন্টন নিয়ে রণক্ষেত্র এলাকা, গুলিবিদ্ধ এক, আহত ১০।

রেশন বন্টন নিয়ে আবারও রণক্ষেত্র রাজ্যের এক জেলা। উত্তর ২৪ পরগনার হাসনাবাদে রেশন বন্টন নিয়ে সংঘর্ষে একজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। আহত ১০ জন। জানা গিয়েছে, রেশন বন্টন নিয়ে সংঘর্ষ শুরু হলে বেশ কয়েকটি দোকান ভাঙচুর করে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। পুলিশ, র‌্যাফ ও কমব্যাট ফোর্স এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। বসিরহাট মহকুমার হাসনাবাদ থানার মাখালগাছা গ্রাম পঞ্চায়েতের পাটকেলপোতা গ্রামে রেশনের চাল-ডাল বিলি করা নিয়ে এদিন সরদারপাড়া ও পাটকেলপোতার মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। প্রায় দু’কিলোমিটার লম্বা লাইনে চারশো জন মতো লোক দেখে রেশন ডিলার জানিয়ে দেন অত লোককে দেওয়ার মতো জিনিস তাঁর দোকানে নেই। এনিয়েই প্রথমে বচসা ও তা থেকে মারামারি শুরু হয়। শুক্রবার বেলা বারোটা নাগাদ সরদারপাড়ার একদল দুষ্কৃতী আচমকাই গুলি বোমা ও বন্দুক নিয়ে হামলা চালায় বলে অভিযোগ। বেশ কয়েকটি বাড়ি ভাঙচুর করে আগুন লাগিয়ে দেয় তারা। স্থানীয় কয়েক জন দোকানদারকে মারধর করে। বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। গুলিও চলে। গুলিতে আইজুল গাজি নামে এক গ্রামবাসী গুরুতর আহত হয়েছেন। হামলার ঘটনায় এক মহিলা-সহ দশ জন আহত হয়েছেন। উত্তর ২৪ পরগনা জেলা পরিষদের শিক্ষা ও ক্রীড়া বিভাগের কর্মাধ‍্যক্ষ ফিরোজ কামাল গাজি অভিযোগ করেন, তৃণমূলের সুষ্ঠু রেশন বণ্টনকে বানচাল করতে সিপিএম পরিকল্পিত ভাবে হামলা করেছে। যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে সিপিএম নেতৃত্ব। উত্তর ২৪ পরগনার সিপিএম জেলা সম্পাদক মৃণাল চক্রবর্তী বলেন, “এটা তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফল। এর সঙ্গে সিপিএমের কোনও যোগাযোগ নেই। রেশনের লুঠের চাল ভাগ বাঁটোয়ারা নিয়ে নব্য তৃণমূল ও পুরনো তৃণমূলের গণ্ডগোল।” এই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ওই এলাকায় শান্তি বজায় রাখতে কমব্যাট ফোর্স ও বিশাল পুলিশবাহিনী এলাকা টহল দিচ্ছে।

Spread the love