দেশ প্রথম পাতা

বেসামাল বাণিজ্য নগরী! জলের তলের রেললাইন, ৭০০ যাত্রী নিয়ে কোমর জলে অসহায়ভাবে দাঁড়িয়ে মহালক্ষী এক্সপ্রেস

 নিজস্ব সংবাদদাতা: শুক্রবার রাত থেকেই টানা বৃষ্টি চলছে মুম্বইতে। একটানা ভারী বৃষ্টির জেরে বেসামাল বাণিজ্য নগরী। ক্রমশ খারাপ হচ্ছে  বন্যা পরিস্থিতি। মুম্বই, রত্নগিরি, কল্যাণ-সহ বিভিন্ন জায়গায় ক্রমশ জল বাড়ছে। শনিবার আরও বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর। এরকম এক অবস্থায় শবিবার বদলাপুর ও ওয়ানগানির মধ্যে আটকে পড়ল মুম্বই-কোলহাপুর গামী মহালক্ষ্মী এক্সপ্রেস। এখনও ট্রেনের মধ্যে আটকে রয়েছেন ৭০০ যাত্রী।

শনিবার সকালে তাদের উদ্ধারে নেমেছে বায়ুসেনা, নৌসেনার কপ্টার ও এনডিআরএফ। তবে উদ্ধার কাজ শুরু হয়েছে। শহর মুম্বই থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে থানে জেলার কাছে ওয়াঙ্গানি এলাকায় শুক্রবার রাতেই আটকে পড়ে কোলাপুরগামী মহালক্ষ্মী এক্সপ্রেস। ফোনে ছবি তুলে নিজেদের অসহায়তার কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় জানান যাত্রীরা। সাহায্য চেয়ে পাঠান। এরপরেই উদ্ধারকাজে নামে এনডিআরএফ-এর বিশেষ দল। যাত্রীরা জানিয়েছেন, ট্রেনের কামরায় জল ঢুকে গিয়েছে। গত ১৫ ঘণ্টা ধরে তাঁদের কাছে না আছে খাবার, না আছে পানীয় জল। অসুস্থ হয়ে পড়েছেন বেশ কয়েকজন যাত্রীও। চারপাশে ৫ থেকে ৬ ফুট পর্যন্ত থইথই করছে জল। একেবারে আটকে পড়েছেন তাঁরা। বেরনোর কোনও উপায়ই নেই। যে জায়গায় ট্রেনটি আটকে পড়েছে সেখান থেকে কাছের জনবস্তিও অনেক দূরে। ফলে ট্রেন থেকে নামতে সাহস পাচ্ছেন না যাত্রীরা। যাত্রীদের মধ্যে বিস্কুট ও জল বিতরণ করতে শুরু করেছে পুলিস।এদিকে, যাত্রীদের ট্রেন থেকে নীচে নামতচে নিষেধ করেছে সেন্ট্রাল রেল। রেলের তরফে  যাত্রীদের উদ্দেশ্য বলা হয়েছে, এখন ট্রেনই সবচেয়ে নিরাপদ জায়গা। নীচে নামবেন না। আপনাদের দেখভাল করার জন্য ট্রেনে পৌঁছে গিয়েছে পুলিস, আরপিএফ।

Spread the love