গ্যাল্যারি প্রথম পাতা

বাংলাদেশকে ব্যঙ্গ করতে গিয়ে আঘাত বাঙালি ভাবাবেগে, চাপের মুখে প্রত্যাহার ‘ডবারে’র বিজ্ঞাপন

নিজস্ব প্রতিনিধি— বর্তমান যুগে বিজ্ঞাপন এমন একটা কৌশল যেখানে প্রত্যেক কোম্পানি তার নিজস্ব প্রোডাকটি খুব সহজেই মানুষের পৌঁছে দিতে পারে। কিন্তু সেই বিজ্ঞাপনই যখন পরোক্ষ-প্রত্যক্ষভাবে মানুষের ভাবাবেগকে আঘাত হানে তখন সেটা থেকে মানুষ মুখ ফিরিয়ে নেয়। যেমন সম্প্রতি ভারত-বাংলাদেশের ম্যাচের আগে বিখ্যাত আয়ুর্বেদ কোম্পানি ‘ডাবর’-এর একটি বিজ্ঞাপনকে ঘিরে গর্জে উঠল সোশ্যাল মিডিয়া। প্রতিবাদে গর্জে উঠেছে আপামর বাঙালি, উঠেছে ডাবরকে বয়কটের ডাক। প্রশ্ন ওঠে বাংলাদেশের সঙ্গে খেলার পারদ চড়াতে গিয়ে সমগ্র বাঙালি জাতিকে অপমান কেন? বিজ্ঞাপনটিতে ‘টাপুর টুপুর বৃষ্টি পড়ে’ কবিতা নিয়ে মস্করা করার অধিকার ডাবরকে কে দিল? ফলে বাধ্য হয়েই বিতর্কিত সেই বিজ্ঞাপন প্রত্যাহার করতে বাধ্য হল ডাবর। তাদের সমস্ত সোশ্যাল মিডিয়া সাইট থেকে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে বিজ্ঞাপনটিতে।

ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচের ঠিক আগের দিনেই বিতর্কিত বিজ্ঞাপন বানিয়ে শিরোনামে জনপ্রিয় আয়ুর্বেদিক কোম্পানি ‘ডাবর’। বাংলাদেশকে নিশানা বানাতে গিয়ে পরোক্ষে সমগ্র বাঙালিদেরই অপমান করা হয়েছে, এমনটাই মনে করছে কয়েকটি বাঙালি জাতীয়তাবাদী সংগঠন। কিন্তু কী আছে বিজ্ঞাপনটিতে? ২৬ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায়, ভারতের জার্সি গায়ে এক ব্যক্তি বসে আছেন সোফায়। তাঁর সামনে রাখা একটি বাটিতে বেশ কিছু তিলের নাড়ু। ওই বাটি থেকে নাড়ু খাচ্ছিলেন ওই ব্যক্তি। এ সময় অন্য প্রান্ত থেকে কেউ একজন জানতে চান, তিনি কী খাচ্ছেন? জবাবে ওই ব্যক্তি বলেন, তিনি বাংলাদেশ থেকে আনানো তিলের নাড়ু খাচ্ছেন। তিনি যেভাবে নাড়ুগুলিকে চিবিয়ে খাচ্ছেন, সেভাবেই ভারতীয় দল বাংলাদেশকে শেষ করে দেবে। এরপরই বিকৃতি করে রবীন্দ্রনাথের ছড়া বৃষ্টি পড়ে টাপুর-টুপুর গানের মতো করে গাইতে থাকেন ওই ব্যক্তি।বাঙালি সংগঠনগুলির অভিযোগ, রবীন্দ্রনাথের গান বিকৃত করে এবং তিলের নাড়ুর প্রসঙ্গ টেনে এনে আসলে সমগ্র বাঙালি জাতিকেই অপমান করা হয়েছে ওই বিজ্ঞাপনে। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই বিজ্ঞাপনটির বিরুদ্ধে ব্যাপক ক্ষোভপ্রকাশ করেন নেটিজেনরা। বিজ্ঞাপনটি প্রত্যাহার না করা হলে আন্দোলনে নামার হুঁশিয়ারি দেয় একটি বাংলা জাতীয়তাবাদী সংগঠন। এরপরই প্রত্যাহার করা হয় বিজ্ঞাপনটি।

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।