জেলা প্রথম পাতা রাজ্যের খবর

শহিদ দিবসের সভায় যোগ দেওয়ায় তৃণমূল কর্মীকে পিটিয়ে খুন! অভিযোগের তির বিজেপির বিরুদ্ধে

নিজস্ব প্রতিনিধি : ফের রাজনৈতিক সংঘর্ষের বলি এক তৃণমূল নেতা। হুগলির গোঘাট থানার নকুণ্ডা পঞ্চায়েত এলাকায় তৃণমূল কর্মীকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগ উঠল BJP-র বিরুদ্ধে । ঘটনার তদন্তে নেমে ইতিমধ্যেই ৩ বিজেপি কর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে গোঘাট থানার পুলিশ। যদিও দলের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ ভিত্তিহীন বলেই দাবি করেছেন স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব।

জানা গিয়েছে, গতরাতে বাড়ি ফিরছিলেন লালচাঁদ ৷ অভিযোগ, সেইসময় স্থানীয় BJP কর্মীরা তাঁকে রাস্তা থেকে টেনে নিয়ে গিয়ে একটি গোয়ালঘরে ঢুকিয়ে মারধর করে৷ এরপর তারা তাঁকে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় রাস্তায় ফেলে পালিয়ে যায়৷ কিছুক্ষণ পর তাঁকে রাস্তায় পড়ে থাকতে দেখেন স্থানীয় এক তৃণমূল কর্মী। তিনিই তাঁর বাড়িতে খবর দেন। এরপর স্থানীয় বাসিন্দাদের সহায়তায় তাঁকে উদ্ধার করে আরামবাগ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে চিকিৎসকরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন ৷ অভিযোগ, সেখানেই লাঠি, রড, বাঁশ দিয়ে বেধড়ক মারধর করা হয় লালচাঁদকে। এরপর রক্তাক্ত অবস্থায় তাঁকে রাস্তার উপর ফেলে রেখে চম্পট দেয় দুষ্কৃতীরা। স্থানীয়রা লালচাঁদকে উদ্ধার করে আরামবাগ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই মৃত্যু হয় তাঁর। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লালচাঁদের দেহটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তে পাঠায়। লালচাঁদ ও তার তিন ভাই ২১ জুলাই তৃণমূলের শহিদ সভায় গেছিলেন। অভিযোগ, সেকারণেই এভাবে খুন হতে হল তাঁকে৷

যদিও বিজেপির বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ ভিত্তিহীন বলে দাবি গেরুয়া শিবিরের। তবে বিজেপির আরামবাগ সাংগঠনিক জেলা সভাপতি বিমান ঘোষ বলেন, ভোটের আগে থেকেই তৃণমূল কর্মীরা একাধিক জায়গায় অশান্তি করে বিজেপিকে কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে। এই ঘটনাও সেরকমই এক চক্রান্ত।

পাশাপাশি তিনি দাবি করেন, খুনের ঘটনায় যাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে তারাও তৃণমূলেরই কর্মী। বিজেপির সঙ্গে অভিযুক্তদের কোনও যোগাযোগ নেই।

 

 

 

Spread the love