কলকাতা প্রথম পাতা

কংগ্রেসের পাল্টা চালে বিপাকে আলিমুদ্দিন

নিজস্ব প্রতিনিধি:  24 ঘন্টা সময় দিয়েছিলেন বিমান বসু। নির্ধারিত সময় পার হওয়ার ঢের আগেই প্রদেশ কংগ্রেস বামেদের ডাকে ‘সাড়া’ দিলো। বামেদের চার আসনে প্রার্থী না দেওয়ার ঘোষণার পাল্টা হিসাবে ‘মাস্টারস্ট্রোক’ প্রদেশ কংগ্রেসের। বিজেপি এবং তৃণমূলকে রুখতে এবং বামেদের সঙ্গে আসন সমঝোতায় যেতে এখনও কতটা আগ্রহী তা বোঝাতে কংগ্রেস পাঁচ আসনে প্রার্থী না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই পাঁচ আসনে কংগ্রেস সমর্থন করবে বামপ্রার্থীদের। এই আসনগুলি হলো, আসানসোল, তমলুক, আরামবাগ, বিষ্ণুপুর ও ডায়মন্ড হারবার।
বিমান বসু বলেছিলেন কংগ্রেস জোটে আগ্রহী কিনা বোঝার জন্য তাঁরা বুধবার পর্যন্ত সময় নিয়েছে। কংগ্রেস নীরব থাকলে, বামেরা ওই চার আসনেও প্রার্থী ঘোষণা করবে। বিমানবাবুর ডাকে ‘সাড়া’ দিয়ে কংগ্রেসও সমঝোতায় দ্রুত সদিচ্ছা দেখিয়ে এবার বামেদের ব্যাকফুটে পাঠিয়ে দিলো। এরপর বামেদের কথা বলার রাস্তাও বন্ধ হয়ে গেলো।
আসলে, বামেরা 4 আসন ছাড়ার বিনিময়ে রায়গঞ্জ ও মুর্শিদাবাদ থেকে কংগ্রেস প্রার্থী সরিয়ে নিক, এমনটাই চেয়েছিলেন। মুখে সিপিএম বলেননি, কোন দুই আসন তারা চাইছে। ফলে সিপিএম বা ফ্রন্টকে সরাসরি ফাঁদে ফেলে দিয়েছে কংগ্রেস। এখন আর বামেদের পিছিয়ে যাওয়ার প্রশ্নই সম্ভবত থাকছে না।

রাজনৈতিক মহল বলছে, প্রদেশ কংগ্রেসের “4-এর বদলে 5”- এর চালেই কার্যত মাত হতে চলেছে আলিমুদ্দিন। প্রদেশ কংগ্রেস ভালোভাবে বুঝিয়ে দিলো, কং-বাম আসন-সমঝোতায় তাঁরা কতখানি আগ্রহী। যে আসনগুলি কংগ্রেস ছাড়ছে, সেই সব আসনে লড়লে কংগ্রেসের জামানত থাকতো কিনা সন্দেহ। অসম্ভব বিচক্ষণতার পরিচয় দিয়ে রাহুল গান্ধীর দল এই সুযোগে বামেদের যে শিক্ষা দিলো, তা দীর্ঘদিন আলিমুদ্দিন মাথায় রাখবে। এখন বিমানবাবুদের হাতে বিকল্প পথ দু’টি, হয় আসন- সমঝোতার স্বার্থে কংগ্রেসের 5 আসনের প্রস্তাব গ্রহণ করে নেওয়া অথবা ছেড়ে রাখা ওই 4 কেন্দ্রেও প্রার্থীর নাম বুধবারই জানিয়ে দেওয়া। এবং তাতে প্রমান হবে জোট ভেঙ্গে দিলো বামেরাই।

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।