জেলা প্রথম পাতা রাজ্যের খবর

বয়স কথা বলছে, তাই জয় শ্রী রামের মানে বুঝতে পারেন নি! দিলীপের পথে হেঁটেই এবার অর্মত্য সেনকে নিশানা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র

নিজস্ব প্রতিনিধি: একদিকে ‘জয় শ্রী রাম’ অন্যদিকে ‘জয় বাংলা’। এমন দুই স্লোগানে যখন দু’ভাগে বিভক্ত বাংলার রাজনীতি। তখন দশভুজা দুর্গায় আস্থা রাখলেন নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন। গতকাল শুক্রবার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে এক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে একথা বলেন তিনি। এমনকী এই স্লোগানকে হাতিয়ার করে কিছু মানুষকে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে হেনস্থা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন এই বাঙালি গর্ব অমর্ত্য সেন। এই প্রসঙ্গে নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদকে আক্রমণ করেছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তাঁর পালটা দাবি, জয় শ্রী রাম যাঁরা বলছেন, তাঁরাই বাংলাকে চেনেন। শুধু তাই নয়, তিনি আরো বলেন, অমর্ত্য সেনদের কথা শোনার লোক নেই। আজ কমিউনিস্টরা শেষ। আর সেকুলাররা রাস্তায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। মানুষ অমর্ত্য সেনদের মতো বুদ্ধিজীবীদের কথা আর শুনছে না। শুনলে নির্বাচনে এই ফলাফল হত না। মানুষ দু’হাত তুলে জয় শ্রীরাম বলছেন। সারা ভারতেই মানুষ যা বলছে, বাংলাও তার বাইরে নয়। অমর্ত্য সেনরা আসবেন, সরকারি পয়সায় খাবেন, চলে যাবেন। বাংলার কোনও দায়িত্ব নেবেন না। এবার দিলীপ ঘোষের পথে হেঁটেই অর্মত্য সেনকে আক্রমণ করে বসলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদের বয়সকে স্মরণ করিয়ে দিয়ে বাবুল সোশ্যাল মিডিয়ায় লেখেন, ‘তাঁর বয়স কথা বলছে, মস্তিষ্ক বা অন্য কিছু নয়৷ সেই কারণেই জয় শ্রীরামের মানে বুঝতে পারেননি উনি।’

সেইসঙ্গে বাবুল আরও লেখেন, ‘বাংলায় জয় শ্রীরাম প্রতীকি প্রতিবাদের ধ্বনি, এর সঙ্গে ধর্মের যোগ নেই। জয় শ্রীরাম ধ্বনি অবশ্যই মানুষকে প্রহারের জন্য ব্যবহার অনুচিত৷।বরং এই ধ্বনি ব্যবহার হচ্ছে অত্যাচারীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর লড়াই হিসাবে।’

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।