aamar sakal: Bypass machine in the face, you are better than ever! The chief minister told the hospital beside the CO
কলকাতা প্রথম পাতা

আমার সকাল: মুখে বাইপ্যাপ মেশিন, আগের চেয়ে ভালো আছেন বুদ্ধবাবু! সিওকে পাশে নিয়ে হাসপাতালে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি: রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের শারীরিক অবস্থা আগের চেয়ে ভালো আছে। আলিপুরের বেসরকারি হাসপাতাল থেকে বেরিয়ে জানালেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রবল শ্বাসকষ্ট নিয়ে শুক্রবার সন্ধেয় বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে।

আলিপুরের বেসরকারি হাসপাতালের আইটিইউ-এর ৫১৬ নম্বর বেডে চিকিত্সাধীন বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য। আধ ঘণ্টার মধ্যে তাঁকে দেখতে হাসপাতালে পৌঁছে যান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বেরিয়ে যাওয়ার সময় মুখ্যমন্ত্রী জানান, চিকিত্সকরা পুরোটা বলতে পারবেন। যখন নিয়ে আসা হয়েছিল, তার থেকে অনেকটা বেটার আছেন। ওনার হিমোগ্লোবিন কমে গিয়েছিল। তাই রক্ত দিতে হবে। আপাতত স্থিতিশীল রয়েছেন। একটু চিন্তা ছিল। অনেকটা সুস্থ হয়ে উঠেছেন। উনি উঠে বসেছেন বলে শুনলাম।”প্রাথমিক ভাবে পাঁচ  ডাক্তারের মেডিক্যাল বোর্ড তৈরি করে চিকিৎসা শুরু হয়। জানা গেছে, তাঁর মুখে বাইপ্যাপ মেশিন বসানো হয়েছে। আইসিসিইউতে রেখে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীর কী কী সমস্যা তা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

বিকেল থেকে শ্বাসকষ্ট বাড়ছিল বুদ্ধবাবুর। সন্ধেবেলা সেটাই প্রবল হয়। সন্ধে ৭টা নাগাদ আলিমুদ্ধিনে খবর যায়। খবর পেয়েই তাঁর বাড়িতে ছোটেন চিকিৎসকরা। পারিবারিক ডাক্তার কৌশিক চক্রবর্তী উডল্যান্ডসে ভর্তি করার ব্যবস্থা করেন।

ডঃ কৌশিক চক্রবর্তীর তত্ত্বাবধানে পাঁচ সদস্যের মেডিকাল বোর্ড গঠন করা হয়েছে। হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়েছে, প্রয়োজনে মেডিকাল বোর্ড আরও বাড়ানো হবে। আপাতত তাঁর রক্তচাপের মাত্রা ৬৫/৪০। শরীরে অক্সিজেনের পরিমাণও খুব কম। প্রাথমিক ভাবে চিকিৎসকরা মনে করছেন, তাঁর শ্বাসের সংক্রমণের কারণে রক্তচাপের এই হেরফের। প্রায় ১০ রকম রক্ত পরীক্ষা করা হচ্ছে তাঁর।

হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়েছে, বুদ্ধবাবুর রক্তে হিমোগ্লোবিনের মাত্রা অনেকটাই কমে গেছে। রক্ত দিতে হবে তাঁকে। তবে প্রথমে তাঁকে হাসপাতালে যে অবস্থায় আনা হয়েছিল, তার তুলনায় তিনি এখন অনেকটাই ভালো আছেন।২০০৯ সাল থেকে বুদ্ধবাবুর সিওপিডি-র সমস্যা। যে কারণে তাঁকে প্লেনে চড়তে বারণ করেছিলেন চিকিৎসকরা। ২০১১ সালের পর শ্বাসকষ্ট এমন জায়গায় যায়, যে আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের সিঁড়ি দিয়েও উঠতে পারতেন না উনি। ব্যবহার করতে হত লিফট। এমনও দিন গিয়েছে, বুদ্ধবাবুর কনভয় আলিমুদ্দিনে পৌঁছনোর পর দেখা যায় লিফট খারাপ, তখন পাম অ্যাভিনিউয়ের বাড়িতে ফিরে চলে আসতে হয় তাঁকে।হাসপাতালে পৌছে সিপিএম নেতা মহম্মদ সেলিম টুইট করেন জানান, বুদ্ধদাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। অযথা দুশ্চিন্তার কারণ নেই। তাঁর শারীরিক অবস্থা ডাক্তারদের তত্বাবধানে উন্নতির দিকে। সূর্যদা-সহ আমরা হাসপাতালে আছি।

 

 

 

Spread the love