Aamar sokal( September 19): Votes have dropped but interest in CPM has not decreased yet! Pujo records his sale of record books
কলকাতা প্রথম পাতা

আমার সকাল : ভোট কমেছে কিন্তু সিপিএমের প্রতি আগ্রহ এখনও কমেনি! পূজোয় রেকর্ড বই বিক্রি তার প্রমাণ

নিজস্ব প্রতিনিধি : এবারের লোকসভা ভোটে সিপিএমের ভোট এসেছে দাঁড়িয়েছে ৭ শতাংশে। এই প্রথমবার লোকসভায় কোন মন্ত্রী নেই তাদের। তাও যেন সিপিএমের চাহিদা এখন কমেনি। ক্রমশ ক্ষয়িষ্ণু এই অবস্থাতেও এ বার পুজোয় বই বিক্রিতে অতীতের সব রেকর্ড ভেঙে দিল সিপিএম। সিপিএম নেতাদের দাবি, সারা রাজ্যে প্রায় দেড় কোটি টাকার বই বিক্রি হয়েছে শারোদৎসবে।

সিপিএমের কলকাতা জেলা সম্পাদক মণ্ডলীর সদস্য সুদীপ সেনগুপ্ত জানিয়েছেন, “যাদবপুরযাদবপুরের ওই স্টলে নবমীতে শুধু এক দিনেই বই বিক্রি হয়েছে ৮০ হাজার টাকার। মোট বিক্রি এখনও পর্যন্ত দু’লক্ষ ৪১ হাজার টাকার।  নারকেল বাগানের বুক স্টলে বই বিক্রি হয়েছে এক লক্ষ ৩৮হাজার টাকার বই। এক লক্ষ ৭৫ হাজার টাকার বই বিক্রি হয়েছে রানিকুঠির স্টল থেকে।” আর প্রায় সব স্টলেই বিক্রির তালিকায় শীর্ষে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের নতুন বই, ‘স্বর্গের নীচে মহাবিশৃঙ্খলা।’

সিপিএমের দাবি এ বার শুধু বই বিক্রি নয়। বেড়েছে স্টলের সংখ্যাও। ২০০৮-০৯ সালের সময় থেকে যে গোঘাট, খানাকুল, পুরশুড়াতে সিপিএমের স্টলের যেখানে দেখা যেত না, সেখানেও এ বার সাজিয়ে গুছিয়ে বুক স্টল খুলে বসেছিল তারা। অন্যদিকে কথা ছিল, বিজয়া দশমীর রাতেই গুটিয়ে যাবে মণ্ডপ চত্বরের বই বিপণি। কিন্তু পাঠকদের বিপুল সাড়ায় যাদবপুরের বই বিপণি কাল, বৃহস্পতিবার দুপুর পর্যন্ত খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিল সিপিএম।

পুজোর সময় মার্ক্সীয় সাহিত্যের স্টল খোলা এ রাজ্যে বামেদের অনেক পুরনো রেওয়াজ। শুধু সিপিএম নয়। আরএসপি, সিপিআই, ফরওয়ার্ড ব্লক এমনকী এসইউসি’র মতো দলও যেখানে যেমন শক্তি সেখানে তেমন বইয়ের স্টল খোলে।