কলকাতা জেলা দেশ প্রথম পাতা রাজ্যের খবর লাইফ স্টাইল

জাপানের আত্মসমর্পণের দ্বিতীয় বার্ষিকীতে বেছে নেওযা হয়েছিল ভারতের প্রথম স্বাধীনতার

নিজস্ব প্রতিনিধি : ৭২ পেরিয়ে ৭৩-এ পা ভারতীয় স্বাধীনতার। এরমধ্য রাতের গেরুয়া, সাদা আর সবুজের এক চাঁদোয়ায় ঢাকবে ১৩০ কোটি মানুষ। উৎসাহের সঙ্গে স্বাধীনতা দিবস পালন করা হলেও, এর পিছনে স্বাধীনতা সংগ্রামীদের আত্মত্যাগ ও প্রাণদানের ইতিহাস ভোলার নয়৷ সেই ইতিহাসকে জানতে বসলেই যে প্রশ্ন সবার আগে উঠে আসে, তা হল ভারতের স্বাধীনতা দিবস কেন ১৫ই আগস্ট পালন করা হয়? কেন এই দিনটিকে বেছে নেওয়া হল? জেনে নিন কিছু তথ্য৷

১৫ অগস্ট, ‘দেশ’ ভারতের বয়স হবে ৭২। লর্ড মাউন্টব্যাটেনকে ১৯৪৭ সালের ৩০শে জুন ক্ষমতা হস্তান্তরের আদেশ দেয় ব্রিটিশ পার্লামেন্ট৷ কিন্তু সেই ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে হতে আগস্ট মাস পর্যন্ত সময় লেগে যায়৷ পাক দেশের প্রথম গভর্নর জেনারেল মঃ আলি জিন্না চেয়েছিলেন ১৫ অগস্টই পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস হিসেবে চিহ্নিত হোক। এমনকি প্রথম বছর ভারত এবং পাকিস্তান দুই দেশই ১৫ অগস্টই স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করে। কিন্তু পরবর্তী সময়ে ভারতের একদিন আগেই পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস উদযাপনের প্রস্তাবে সম্মতি প্রদান করা হয়, আর সেই থেকেই প্রত্যেক ১৪ অগস্ট স্বাধীনতা দিবস পালন করে আসছে মালালার দেশ। উল্লেখ্য, ‘স্বাধীন পাকিস্তান রাষ্ট্রে’র হস্তান্তর হয়েছিল সেদিনই। আর ১৪ অগস্টই পাকিস্তানের করাচিতে প্রথম ক্ষমতা হস্তান্তরের অনুষ্ঠানের আয়োজনও হয়েছিল। এতো না হয় গেল পাকিস্তানের কথা। ভারত কেন ১৫ অগস্টই স্বাধীনতা পেল? উত্তরটা জানা আছে আপনার?

Related image

লর্ড মাউন্টব্যাটেনকে ১৯৪৭ সালের ৩০শে জুন ক্ষমতা হস্তান্তরের আদেশ দেয় ব্রিটিশ পার্লামেন্ট৷ কিন্তু সেই ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে হতে আগস্ট মাস পর্যন্ত সময় লেগে যায়৷

এক জাতীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী তৎকালীন ভারতীয় রাজনীতিবিদ সি রাজাগোপালাচারি লেখেন, যদি ১৯৪৮ সালের জুন মাস পর্যন্ত অপেক্ষা করার কোন অর্থ নেই৷ এই চাপে লর্ড মাউন্টব্যাটেন স্বাধীনতার সময়কে এগিয়ে নিয়ে আসেন ১৯৪৭ সালের আগস্টের দিকে।

Related image

সময়টা এগিয়ে আনার ক্ষেত্রে মাউন্টব্যাটেনের যুক্তি ছিল তিনি দাঙ্গা বা রক্তপাত চান না৷ অবশেষে দু সপ্তাহের মধ্যে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভারতীয় স্বাধীনতা আইন ১৯৪৭ পাস হয়। ওই আইনে ১৫ আগস্টকেই ধরা হয় ব্রিটিশ ভারতের শেষ দিন।

ইতিহাস বলছে, লর্ড মাউন্টব্যাটেনকে যখন ভারতের স্বাধীনতার দিন ঠিক করতে বলা হয় তখন তৎকালীন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী চার্চিলের ঘরে বসে রেডিও মারফৎ শোনা জাপানের আত্মসমর্পণের দিনটার কথাই নাকি সবার প্রথম তাঁর মাথায় আসে। এরপর ১৯৪৭ সালের ৪ জুলাই, মাউন্টব্যাটেন ১৫ অগস্ট দিনটির কথা ব্রিটিশ হাউস অব কমন্সে পেশ করেন। সেখানে তিনি জানান, “ভারতে ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের দিন শেষ, ১৫ অগস্ট থেকে ভারত এবং পাকিস্তান উভয় দেশেই শুরু হবে নতুন কর্তৃত্ব।”

Image result for independence

সময়টা এগিয়ে আনার ক্ষেত্রে মাউন্টব্যাটেনের যুক্তি ছিল তিনি দাঙ্গা বা রক্তপাত চান না। অবশেষে দু সপ্তাহের মধ্যে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে ভারতীয় স্বাধীনতা আইন ১৯৪৭ পাস হয়। ওই আইনে ১৫ আগস্টকেই ধরা হয় ব্রিটিশ ভারতের শেষ দিন।

ল্যারি কলিন্স ও ডমিনিক লা পিয়েরের লেখা ফ্রিডম অ্যাট মিডনাইটে বলা হয়েছে, মাউন্টব্যাটেন নিজেই শুধু স্বাধীনতার তারিখ স্থির করেছিলেন। তবে তাকে এই তারিখের ব্যাপারে জিজ্ঞাসা করা হলে, সেভাবে কোনো সুস্পষ্ট জবাব দেননি। বলেছিলেন আগস্ট থেকে সেপ্টেম্বরের মধ্যে এই তারিখ ঘোষণা করা হবে। তাহলে ১৫ই আগস্ট কেন বেছে নিয়েছিলেন তিনি? জানতে চাওয়া হয়েছিল। তিনি পরে জবাব দিয়েছিলেন ১৫ তারিখ বাছার কারণ সেদিন জাপানের আত্মসমর্পণের দ্বিতীয় বার্ষিকী।