কলকাতা জেলা প্রথম পাতা

সামনে যুদ্ধ! কর্মীরা খেটে বেড়াবে আর কেউ বাড়িতে বসে লুচি-আলুরদম খাবে, সব্যসাচীকে খোঁচা সুজিতের

নিজস্ব প্রতিনিধি: সামনেই লোকসভার ভোট। যেকোনও সময় লোকসভার ভোটের দামামা বেজে যেতে পারে। মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে তৃণমূল দলের নেতা-মন্ত্রীদের ভাঙিয়ে নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ প্রায়ই উঠে আসছে। এবার সেই জল্পনা আরও একটু বাড়ল। একদা রাজনৈতিক জীবনের ‘গুরু’ হঠাৎ গেলেন ‘শিষ্যে’র বাড়িতে। আর সেই নিয়েই শুক্রবার রাত থেকে নতুন জল্পনা শুরু হয়েছে। জানা গিয়েছে, শুক্রবার সন্ধ্যায় বিধাননগরের মেয়র সব্যসাচী দত্তের বাড়িতে বিজেপি নেতা মুকুল রায় প্রায় দেড় ঘণ্টা ছিলেন।তিনি বলেন, খিদে পেলেই এখানে আসি এই বাড়িতে। লুচি আলুর দম খেয়েছি। ছানার জিলিপি খেয়েছি।আর সব্যসাচীর বাড়িতে মুকুল রায়ের এই লুচি-আলুর দম খাওয়া নিয়ে প্রশ্ন তুললেন দলেরই বিধায়ক তথা রাজ্যের মন্ত্রী সুজিত বসু। সব্যসাচী দত্তের নাম না করেই বিধেঁছেন দমকলমন্ত্রী। শুক্রবার মুকুল রায়ের আগমনের  ঠিক পরের দিন অর্থাৎ শনিবার মধ্যমগ্রামে তৃণমূলের লোকসভা নির্বাচনী বৈঠকে গরহাজির ছিলেন সব্যসাচী দত্ত। তৃণমূলের জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক জানান, স্ত্রীর অসুস্থতার জন্য আসতে পারেননি বিধাননগরের মেয়র। একইসঙ্গে জ্যোতিপ্রিয় দাবি করেছেন, তৃণমূলে কেউ অপরিহার্য নয়। তিনি চলে গেলেও কোনও ফারাক হবে না। কিন্তু সব্যসাচীর নাম না করে বৈঠকে সুজিত বলেন,”সামনে যুদ্ধ। তার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। কর্মীরা খেটে বেড়াবে আর কেউ কারও বাড়ির আলুর দম খাচ্ছে। দুটো একসঙ্গে চলতে পারে না”।   

 

 

 

 

 

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।