প্রথম পাতা

ভোটারদের মনোবল বাড়াতে শাসনে রুটমার্চ কেন্দ্রীয় বাহিনীর

নিজস্ব প্রতিনিধি— উত্তর ২৪ পরগনার শাসন এলাকা বাম জমানা থেকেই রাজনৈতিক মানচিত্রে অতি স্পর্শকাতর এলাকা। একদা শাসনের বাম নেতা মজিদ মাস্টারের দাপটে বাঘে-গরুতে এক ঘাটে জল খেত। বাম আমলের থেকে বর্তমানে হিংসার মাত্রা কমলেও আমূল বদল আসেনি এই এলাকায়। ফলে এখনও এখানে বোমা-গুলির শব্দ শোনা যায় প্রায়শই। আর এর মূল কারণ এই এলাকার অর্থনীতি। মূলত কয়েকশো বিঘা মাছের ভেড়ির ওপরেই এই অঞ্চলের মানুষের জীবিকা অনেকটা নির্ভরশীল। এদিকে রাজ্যের শাসনভার যে দলের হাতে থাকে সেই দলই এই কয়েক কোটি টাকার সম্পত্তির ওপর একচেটিয়া অধিকার কায়েম করে। আর একারণেই এখানকার রাজনীতি কোনও মতে অহিংস থাকে না। ফলে এবারের নির্বাচনেও জেলার এই বিশেষ এলাকা যেকোনও মুহূর্তে ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠতে পারে বলে আশঙ্কা প্রশাসনের। বিশেষত ভোটের মরসুমে এই এলাকার বিস্তীর্ণ ভেড়ি এলাকা কার্যত দুষ্কৃতীদের মুক্তাঞ্চলে পরিণত হয়। আর নির্বাচনের দিন গণ্ডগোল পাকিয়ে দুষ্কৃতীরা অনায়াসে এই ভেড়ি এলাকায় নিশ্চিন্তে গা ঢাকা দেয়। একারণে শাসনের এই দুষ্কৃতী-ডেরা ভাঙতে আগেভাগে তৎপর হল প্রশাসন। একারণে শাসন থানার শাসন, বোয়ালগাটা, খামারনৌবাদ, আমিনপুর, সদ্দারআটি সহ বিভিন্ন গ্রামে কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে রুটমার্চ করল প্রশাসন। পাশাপাশি এই এলাকার দুষ্কৃতীদের গোপন আস্তানায়ও তল্লাশি চালানো হয় এদিন। এর ফলে একদিকে এলাকাবাসীর মনে যেমন সাহস বাড়বে তেমনি দুষ্কৃতীদের মনোবল অনেকটাই ধাক্কা খাবে বলে ধারণা ওয়াকিবহাল মহলের।

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।