আন্তর্জাতিক দেশ প্রথম পাতা বিনোদন

বায়ুসেনাকে কুর্নিশ জানানোর ‘অপরাধে’ শাস্তি প্রিয়াঙ্কা চোপড়া! পিটিশন পাকিস্তানের

নিজস্ব প্রতিনিধি : সারা দেশের মতোই সেনাবাহিনীকে কুর্নিশ জানানোর ‘অপরাধে’ প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জোনাসকে ইউনিসেফের ব্র্যান্ড অ্যাম্ব্যাসাডরের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার দাবিতে অনলাইন পিটিশন করা হল পাকিস্তানে।

ইউনিসেফের মুখ এই অভিনেত্রী জইশ ঘাঁটিতে ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ারস্ট্রাইকের পরে টুইটারে জয় হিন্দ লিখে জওয়ানদের স্যালুট জানিয়েছিলেন। তাতেই ক্ষিপ্ত হয়েছে পাক নেটিজেন। তাই প্রিয়াঙ্কার বিরুদ্ধে একটি অনলাইন পিটিশন দাখিল করেছে তারা।

এর পরেই দেশের সাধারণ মানুষ ও বহু সেলিব্রিটির মতো জওয়ানদের কুর্নিশ জানিয়েছিলেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। তাঁর বাবা অশোক চোপড়া ও মা মধু চোপড়া দু’জনেই ভারতীয় সেনাবাহিনীতে ডাক্তার ছিলেন। সেই জায়গা থেকেই ভারতীয় সেনার প্রতি তাঁর আবেগ থাকা স্বাভাবিক। কিন্তু সে আবেগের বশে তিনি যুদ্ধে প্ররোচনা দিয়েছেন বলে অভিযোগ তুলেছে পাক নেটিজেনরা।

গত মাসের ১৪ তারিখে কাশ্মীরের পুলওয়ামায় একটি সেনা কনভয়ে আত্মঘাতী হামলা চালিয়েছিল আত্মঘাতী জইশ জঙ্গি। তারই প্রত্যাঘাতে, ১২ দিন পরে, ২৬ তারিখ কাক ভোরে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের বালাকোটে জঙ্গি শিবিরে হামলা চালায় ভারতীয় বায়ুসেনা। সূত্র মারফত খবর মেলে ৩৫০ জঙ্গি নিকেশ করে ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দিয়েছে তারা।

তাতে তাদের দাবি, “দু’টি পরমাণু শক্তিধর দেশের মধ্যে যুদ্ধ হলে তা শুধু ধ্বংস ও মৃত্যু ডেকে আনে। ইউনিসেফের গুডউইল অ্যাম্বাসাডর হিসেবে প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার নিরপেক্ষ ও শান্তিপূর্ণ থাকা উচিত ছিল। পাকিস্তানে ভারত হামলা করার পরে তাঁর টুইটে অন্য রকম মানসিকতা প্রকাশ পেয়েছে। এর পরে তিনি আর ওই খেতাবের যোগ্য নন।”

পিটিশনে ইতিমধ্যেই কয়েক হাজার সই জমা পড়েছে। যদিও ওই পিটিশনে পুলওয়ামা হামলা, জইশ ঘাঁটি বা পাকিস্তানে সন্ত্রাসের পরিবেশ সম্পর্কে কিছুই লেখা হয়নি। শুধু প্রিয়াঙ্কার কথাই লেখা হয়েছে।

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।