কলকাতা প্রথম পাতা

বাংলায় কংগ্রেস এখনও পিছনের সারিতেই, জোটের সার্বিক পরিস্থিতি জানতে সোমেন মিত্রকে ফোন কংগ্রেস হাইকমান্ডের

নিজস্ব প্রতিনিধি: জোটের বাস্তব পরিস্থিতি জানতে চেয়ে প্রদেশ কংগ্রেস সভপতি সোমেন মিত্রর সঙ্গে ফোনে কথা বললেন সোনিয়া গান্ধীর ঘনিষ্ঠ নেতা আহমেদ প্যাটেল। সূত্রের খবর, রায়গঞ্জ, মুর্শিদাবাদ ও পুরুলিয়া আসন নিয়ে সিপিআইএম নেতৃত্বের সঙ্গে যে মতপার্থক্য তৈরি হয়েছে, তাও আহমেদ প্যাটেলকে জানান সোমেন। প্রদীপ ভট্টাচার্য ও শংকর মালাকারকে দিয়ে জোটের শেষ চেষ্টা যে তিনি চালিয়ে যাচ্ছেন তাও আহমেদ প্যাটেলকে জানান প্রদেশ সভাপতি। কারন হিসেবে তিনি জানান, সিপিএমের শর্ত মানলে কংগ্রেসকে বাংলায় ১০-১২টি আসনে লড়াই করতে হবে। তাতে কংগ্রেসের সাংগঠনিক ক্ষতি হতে পারে। যার ফায়দা পেতে পারে বাংলার বিজেপি। যা করতে দিতে নারাজ সোমেন কংগ্রেস। তাই সিপিএমের সব দাবি মানা যে প্রদেশ কংগ্রেসের পক্ষে যুক্তিযুক্ত হবে না, তা বিস্তারিতভাবে আহমেদ প্যাটেলের সঙ্গে আলোচনা করেন সোমেন। আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই যে এবিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে আসা যাবে, তাও স্পষ্ট করেন তিনি। জোট ছাড়াই বাংলায় কংগ্রেস ৬-৮টি আসন কংগ্রেস জেতার শক্তি রাখে তা আহমেদ প্যাটেলকে যুক্তি দিয়ে ব্যাখ্যা করেন প্রদেশ সভাপতি। তবে জোট নিয়ে আলোচনা করার মতো সিপিএম নেতারা এখন কলকাতায় নেই। বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান বিমান বসু, সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র ও কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা রবিন দেব, সকলেই কেন্দ্রীয় কমিটির বৈঠকে যোগ দিতে দিল্লী গিয়েছেন। ফিরবেন মঙ্গলবার, ৪ তারিখে। তারপরেই এবিষয়ে কোনও সিদ্ধান্ত নিতে পারবে দ্বিপক্ষীয়। জোট না হলে শেষ অবধি একক ভাবে যে লড়াই করার প্রস্তুতি প্রদেশ কংগ্রেস রেখেছে তাও আহমেদ প্যাটেলকে জানিয়েছেন সোমেন। কারন, ৪২টি কেন্দ্রে প্রার্থী হওয়ার একাধিক আবেদন জমা পড়েছে, যা এআইসিসি নেতাদেরও অনেক নয়।‌ তবে লোকসভা ভোটের জন্য অন্য রাজ্যের কংগ্রেস তৈরি হয়ে গিয়েছে বলেও এদিন সোমেন মিত্রকে জানিয়েছেন প্যাটেল। তাই জোট আলোচনা বা প্রার্থী চয়ন, সবেতেই গতি বাড়ানোর জন্য প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতিকে পরামর্শ দিয়েছেন আহমেদ প্যাটেল। এপ্রসঙ্গে জানতে সোমেন মিত্রকে ফোন করা হলে তিনি জানান, জোট নিয়ে তার সঙ্গে আহমেদ প্যাটেলের কোনও আলোচনা হয়নি।

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।