জেলা দেশ প্রথম পাতা

পাহাড়ের রাজনীতিতে ফের সক্রিয় হতে চাইছে গুরুঙ্গপন্থীরা, সুপ্রিম কোর্টের দারস্থ বিমল গুরুঙ্গ-রোশন গিরিরা

নিজস্ব প্রতিনিধি: সামনে লোকসভা নির্বাচন। পাহাড়ের রাজনীতিতে ফের নতুন মোড় নিতে চলেছে। বিনয় তামাং,অনীত থাপারা জানিয়ে দিয়েছেন এই লোকসভা ভোটে তৃণমূলকে সমর্থন করবে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা। অমর সিং রাইকে দার্জিলিং আসন থেকে প্রার্থী ঘোষণা করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এহেন পরিস্থিতিতে বিমল গুরুং ও রোশন গিরি রাজনৈতিকভাবে দার্জিলিংয়ে প্রায় অপ্রাসঙ্গিক হওয়ার মুখে। তাঁরা বিলক্ষণ বুঝতে পারছেন, লোকসভা নির্বাচনে পাহাড়ের রাজনীতিতে কামব্যাক করতে না পারলে, পাহাড়ে অতীত হয়ে যাবেন। ফলে ঘুরে দাঁড়ানোর মরিয়া চেষ্টায় সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন বিমল গুরং ও রোশন গিরিরা।সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে ৭ দফায় ভোট। দ্বিতীয় দফায় ১৮ দার্জিলিংয়ে ভোট।লোকসভা ভোটে অংশগ্রহণের জন্য নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করা হোক। দেশের শীর্ষ আদালতের কাছে আবেদন জানিয়েছিলেন বিমল গুরুং ও রোশন গিরিরা। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে রাজ্য সরকারের লিখিত উত্তর চাইল সুপ্রিম কোর্ট।বিমল গুরুংদের দায়ের করা মামলার প্রেক্ষিতে রাজ্য সরকারের কাছে উত্তর চেয়েছে শীর্ষ আদালত।

ফলে বল এখন রাজ্য সরকারের কোর্টে। এবার রাজ্য সরকার কী উত্তর দেয়, তার উপরই নির্ভর করছে এই মামলার পরবর্তী গতিপ্রকৃতি। উল্লেখ্য, ২০১৭ সালে  উত্তপ্ত হয়ে ওঠে দার্জিলিং। বিমল গুরুং ও রোশন গিরিদের বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় দায়ের হয় অভিযোগ। তখন থেকেই আর বিমল গুরুং বা রোশন গিরি, কাউকে-ই আর প্রকাশ্যে দেখা যায়নি। এরপর পাহাড়ের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে অনেক জল গড়ায়। অনেক পরিবর্তন আসে। সম্পূর্ণরূপে বদলে যায় দার্জিলিংয়ের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট। গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার নেতৃত্বের রাশ উঠে আসে বিনয় তামাং ও অনীক থাপার হাতে।তাঁরপর থেকেই বিনয় তামাং-রা মুখ্যমন্ত্রীর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ওপর আস্থা রেখে পাহাড়ে নয়া রাজনীতির ইনিংস শুরু করেন তাঁরা ।তাই লোকসভা নির্বাচনের আগে ফের একবার পাহাড়ের রাজনীতিতে নিজেদের সক্রিয় করতে সুপ্রিম কোর্টের দারস্থ হলেন বিমল গুরুঙ্গ,রোশন গিরিরা বলেই মত রাজনৈতিক মহলের।

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।