জেলা প্রথম পাতা

নির্দষ্ট সময়ে বাজেট পেশ না হওয়ায়, জামবনি ব্লকের উন্নয়নের কাজ বন্ধ হয়ে গেল

নিজস্ব প্রতিনিধি :  নির্দষ্ট সময়ে বাজেট পেশ না হওয়ায় ব্লকের উন্নয়নের কাজ থমকে গেল। ব্লক প্রশাসনের পক্ষ থেকে পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি, সদস্যদের বারং বার চিঠি করে বাজেট পেশ করার দিন দেওয়া হলেও উপস্থিত হয়নি সদস্যরা বলে অভিযোগ। সভাপতির বাজেট পেশ করার কথা থাকলেও তিনি নিজে কোন উদ্যোগ নেন নি বলে অভিযোগ উঠেছে। এদিকে বাজেট পাশ না হওয়ার ফলে পঞ্চায়েত সমিতি ব্লকের উন্নয়নের জন্য কোন অর্থ পাবেনা। ফলে আটকে যাবে পঞ্চায়েত সমিতির মাধ্যমে উন্নয়নের কাজ। পাশাপাশি পঞ্চায়েত সমিতির স্টাফদের বেতন পেতে সঙ্কটে পড়তে হবে। এদিকে নির্বাচন ঘোষনা হয়ে যাওয়ার ফলে আর বাজেট পাশ করা যাবে না বলে জানা গিয়েছে প্রশাসন সূত্রে। এই ঘটনায় পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতির গাফলতির অভিযোগ উঠেছে। এই ঘটনা জামবনি ব্লকের পঞ্চায়েত সমিতির। পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি নির্দিষ্ট সময়ে বাজেট পাশ করতে পারলেন না বলেই উন্নয়নের কাজ থমকে গেল বলে অভিযোগ করছেন পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যদের একাংশ। জামবনি পঞ্চয়েত সমিতির ক্ষমতায় রয়েছে তৃণমূল। মোট কুড়িটি পঞ্চায়েত সমিতির আসনের মধ্যে তৃণমূল পেয়েছে চোদ্দটি। বিজেপি পাঁচটি এবং সিপিএম একটি।সভাপতি এবং সহসভাপতি তৃণমূলের। বোর্ড গঠন এবং স্থায়ী গঠন হয়ে যাওয়ার পরেও বাজেট পাশ হয় নি বলে অভিযোগ। এদিকে জামবনি ব্লকের বিডিও সৈকত দে পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি সহ সমস্ত সদস্য, প্রধান, জেলা পরিষদের সদস্য এবং বিধায়ক, সাংসদ সকলে চিঠি করে বারং বার

বাজেট পাশের জন্য জানিয়েছিলেন।কিন্তু দু এক জন উপস্থিত হলেও বাকিরা আসেন নি।এই বিষয়ে জামবনি ব্লকের বিডিও সৈকত দে বলেন “ পঞ্চায়েত সমিতির সমস্ত সদস্য, প্রধানদের, জেলাপরিষদের সদস্যদের, বিধায়ক, সাংসদকে তিনবার চিঠি করে বাজেট পাশের জন্য আসতে বলা হয়েছিল।দুবার তারা চিঠি তারা গ্রহন করে স্বাক্ষর করে ছিলেন।তৃতীয়বার চিঠি গ্রাহন করেন নি। বাজেট পাশ তো সভাপতি করবেন।তাঁরই উদ্যোগ নেওয়ার কথা সধারণ সভাতেই বাজেট পাশ হয়।তার জন্য কর্মধ্যক্ষ গঠনের সঙ্গে সম্পর্ক নেই।সভাপতিকে জানিয়ে চিঠি করা হয়েছিল।এখন নির্বাচন ঘোষনা হয়ে গিয়েছে।আর বাজেট পাশ করা যাবে না।আর মার্চের মধ্যে না হলে আর করাও যাবে না।” অন্যদিকে এই বিষয়ে জামবনি পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি পুতুল শিট বলেন “আমরা ভেবে ছিলাম কর্মধ্যক্ষ গঠনের পর বাজেট পেশ এবং পাশ করব।কর্মধ্যক্ষ গঠিত হয়েছে অনেক পরে।ফলে আর সময় পাওয়া যায়নি।আর বিডিও আমার সাথে কোন আলোচনা না করে চিঠি করেছিলেন। ’’নির্বাচনি বিধি নিষেধের আওতায় রয়েছে বাজেট পাশের বিষয়টি। কিন্তু

সঠিক সময়ে বজেট পাশ হলে এই ভাবে উন্নয়ন আটকে থাকত না বলে অভিযোগ তুলছেন জামবনি ব্লকের বিভিন্ন গ্রামের বাসিন্দারা।

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।