প্রথম পাতা

নবান্নে তোড়জোড় বরাদ্দ অর্থ খরচে

নিজস্ব প্রতিনিধি— লোকসভা ভোটের দামামা বেজে গিয়েছে। তৎপর শাসক-বিরোধী সব দলই। নবান্নেও বিভিন্ন দপ্তরে চরম ব্যস্ততা শুরু হয়েছে। চলতি আর্থিক বছর শেষ হতে বাকি আর মাত্র ৭ দিন। তার আগে অর্থ দফতরের সর্বশেষ নির্দেশিকা অনুযায়ী বাজেটের টাকার পূর্ণ সদ্ব্যবহার করতে চরম তৎপরতা চলছে দফতরগুলিতে। ভোটের দিন ঘোষণার পরই নির্বাচনি আচরণবিধি চালু হয়ে গিয়েছে। এই সময় নতুন কোনও প্রকল্পে অর্থ বরাদ্দ করা দফতরগুলির পক্ষে সম্ভব নয়। ফলে পুরোনো বা চলতি প্রকল্পগুলি যাতে ব্যাহত না হয়, তার জন্য ৩১ মার্চের মধ্যেই চাহিদামতো অর্থের যোগান নির্দিষ্ট করতে নির্দেশ দিয়েছে অর্থ দপ্তর। আর্থিক বছরের শেষলগ্নে চলতি প্রকল্পগুলিতে অর্থবরাদ্দের পর নবান্নের গুরুত্বপূর্ণ দফতরগুলি দিন-রাত এক করে কাজ চালাচ্ছে। শনিবার-রবিবার ছুটির দিনেও তার বিরাম নেই। অর্থ দপ্তরের এক মুখপাত্র জানালেন, দফতরগুলির খরচ না হওয়া বিভিন্ন প্রকল্পের কয়েকশো কোটি টাকার সদ্ব্যবহার করতেও চেষ্টা চলছে। গুরুত্বপূর্ণ সব দফতরের সঙ্গে পরিবহণ দফতরেও তৎপরতা তুঙ্গে। নবান্নে অর্থ দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, ভোট শেষ না হওয়া পর্যন্ত পরিবহণে এখন আর স্বেচ্ছাবসর প্রকল্প কার্যকর করা হচ্ছে না। ভোট মিটলে এই প্রকল্প কার্যকর করতে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এই প্রকল্পের জন্য এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের ২৫০ কোটি টাকার আর্থিক সহায়তার উপর দাঁড়িয়ে পরিবহণ কর্মীদের জন্য এই প্রকল্প চালু করা হয়। তার মধ্যে ১১২ কোটি টাকা কাজে লাগলেও বাকি টাকা পড়ে আছে। অর্থ দফতরের অনুমোদন নিয়ে সম্প্রতি আবার পরিবহণ দফতর কর্মীদের কাছে স্বেচ্ছাবসর নিতে আবেদনপত্র দেওয়ার জন্য নোটিশ দেয়। কর্মীদের থেকে এই ব্যাপারে অল্প সংখ্যক আবেদন। জমা পড়ার মধ্যেই দেশের লোকসভা ভোটের দিন ঘোষণা হয়ে যায়। ফলে প্রক্রিয়াটাই বন্ধ হয়ে যায়। অর্থ দফতর সূত্রে খবর, ভোটপর্ব মিটলে আবার এই প্রক্রিয়া চালু করবে পরিবহণ দপ্তর। এজন্য আগামী বছরের বাজেটে পরিবহণ দফতরের টাকা ধরা রয়েছে। সেই সঙ্গে রয়েছে এডিবি-র চলতি বছরের খরচ না হওয়া অর্থ।

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।