জেলা প্রথম পাতা

ধর্ষকের মৃত্যু ধর্ষিতার হাতে

নিজস্ব প্রতিনিধি : ধর্ষণ করে মহিলার গায়ে আগুন ধরিয়ে দিয়েছিল ৩৫ বছরের ধর্ষক। কিন্তু সে কখনও ভাবতে পারেনি, সে আগুন আসলে তার নিজেকেই পুড়িয়ে মারার অস্ত্র হবে। ধর্ষিতা মহিলা হাসপাতালে ভর্তি, ধর্ষক মারা গেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, মালদহের মানিকচক থানার সুভাষ কলোনি এলাকায় পিন্টু শেখ নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ ওঠে। সুভাষ কলোনি এলাকার এক মহিলার সঙ্গে দীর্ঘ দিনের পরিচিতি ছিল তার। তাঁর চার মেয়ে। এক মেয়ের বিয়ে হয়ে গেছে। দু’মেয়ে পড়াশোনার জন্য হোস্টেলে থাকে। আর এক মেয়ে চাকরি সূত্রে বাইরে থাকেন।

স্থানীয় সূত্রের খবর, সোমবার বিকেলে হঠাৎই গায়ে আগুন লাগানো অবস্থায় চিৎকার করতে করতে বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসেন ওই মহিলা। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মহিলাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে পাঠায়। অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় বাড়ির ভিতর থেকে পাওয়া যায় পিন্টু শেখ নামের যুবককেও। ভোর রাতে মারা যায় পিন্টু।

আক্রান্ত ওই মহিলা জানিয়েছেন, অভিযুক্ত যুবকের সঙ্গে দীর্ঘদিনের পরিচিতি রয়েছে তাঁর। “তার পরেই ও আমার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে, জোর করে ধর্ষণ করে।” –দাবি ওই মহিলার। অভিযোগ, এর পরে তাঁর গায়ে কেরসিন তেল ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয় পিন্টু। ওই অবস্থায় কী করবেন বুঝতে না পেরে তিনি অভিযুক্তকে জড়িয়ে ধরেন। এরপরই আগুন লেগে যায় তার গায়েও। একটি সূত্র অবশ্য বলছে, পিন্টু নিজেই আত্মহত্যা করতে চেয়েছিল ওই মহিলাকে পোড়ানোর পরে।

মানিকচক থানার পুলিশ জানিয়েছে, দগ্ধ ওই মহিলা একটু সুস্থ হলেই জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে তাঁকে। মৃত যুবকের পরিবারের সাথে কথা বলা হচ্ছে। এখনও কোনও লিখিত অভিযোগ দায়ের হয়নি থানায়।

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।