প্রথম পাতা

চোখের জল দিয়ে বড়মার বিদায়ের প্রস্তুতি

নিজস্ব প্রতিনিধি— ‘ঠাকুরকে আমরা চোখে দেখিনি, কিন্তু বড়মা ছিল আমাদের সাক্ষাৎ প্রতিমা’— চোখের জল ফেলতে ফেলতে মতুয়া সংঘের মা বড়মার সম্বন্ধে এমনই কথা বললেন তাঁর এক ভক্ত।

বড়মার মৃত্যুর খবর শোনার পর তাঁকে শেষবার দেখার জন্য ভক্তরা মঙ্গলবার রাত থেকেই এসএসকেএম-এ পৌঁছে গিয়েছে। ইতিমধ্যেই বড়মার দেহ এসএসকেএম হাসপাতাল থেকে রওনা দিয়েছে ঠাকুরনগরের উদ্দেশ্যে। এসএসকেএম- থেকে শববাহী যশোররোড ধরে যাবে ঠাকুর নগরের উদ্দেশ্যে। রাস্তার ধারে অজস্র মানুষ তাঁকে শেষবার দেখার জন্য দাঁড়িয়ে রয়েছে। শববাহী গাড়ির সঙ্গে রয়েছেন মমতাবালা ঠাকুর ও মন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। সেখানেই তাঁকে গান শ্যালুটের মাধ্যমে শেষ শ্রদ্ধা জানানো হবে।

উল্লেখ্য, মঙ্গলবার ৮টা ৫২ মিনিটে এসএসকেএম হাসপাতালে প্রয়াত হন বড়মা বীণাপানি দেবী। সাংবাদিকদের মুখোমুখি সে খবর নিশ্চিত করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, হৃদস্পন্দন বন্ধ হলেও চার ঘণ্টা রাখা হয়। সকাল ৮টায় দেহ পাইলটিং করে নিয়ে যাওয়া হবে। গান স্যালুট দিয়ে শেষকৃত্যের ব্যবস্থা করা হবে।               

স্মৃতিমন্থন করে মমতা বলেন,”অভিভাবকের মতো আমার পাশে থেকেছেন। আমাকে বহুবার সমর্থন করেছেন। এটা ব্যক্তিগত ক্ষতি। রাজ্যের সর্বোচ্চ সম্মান বঙ্গবিভূষণ দিয়ে এসেছিলাম। মমতাবালা ঠাকুরকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। সারাক্ষণ মায়ের সঙ্গে ছিল। সাধ্যমতো চেষ্টা করেছে”। 

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।