দেশ প্রথম পাতা

ওয়াঘায় অভিনন্দন! সীমান্তে কড়া পরীক্ষার সম্মুখীন ভারতীয় বীর যোদ্ধা

নিজস্ব প্রতিনিধি — প্রায় ৫৪ ঘণ্টা পর দেশে ফিরতে চলেছেন বায়ুসেনার পাইলট অভিনন্দন বর্তমান। উৎকন্ঠার পারদ চড়ছে। আর কিছুক্ষনের অপেক্ষা। ইতি মধ্যে ওয়াঘা সীমান্ততে পৌচ্ছে গিয়েছেন ভারতের বীর যোদ্ধা অভিনন্দন। তাঁকে স্বাগত জানাতে ওয়াঘা সীমান্তে ভিড় জমিয়েছেন বহু সাধারণ মানুষ। টিভির পর্দায় চোখ রয়ছে দেশবাসীর। কিন্তু দেশে ফিরেই কি স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবেন তিনি? সেই নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।  

বিশেষজ্ঞদের দাবি, অসীম সাহসের পরিচয় দিয়েছেন অভিনন্দন বর্তমান। ১৯৭০ সালে তৈরি পুরনো মিগ-২১ নিয়ে অত্যাধুনিক পাক যুদ্ধবিমান এফ-১৬কে তাড়া করে সে দেশে ঢুকে পড়েন তিনি। এর জন্য অবশ্যই প্রশংসা প্রাপ্য তাঁর। কিন্তু শত্রুদেশের হেফাজত থেকে ফিরেছেন, দফায় দফায় জেরার মধ্য দিয়ে যেতেই হবে তাঁকে।

  • বায়ুসেনার পক্ষ থেকে যদিও এখনও পর্যন্ত এ ব্যাপারে কোনও মন্তব্য করা হয়নি। তবে অভিনন্দন কোন পরিস্থিতির মুখোমুখি হতে হচ্ছে, বায়ুসেনা আধিকারিকদের কাছ থেকে তার ইঙ্গিত মিলেছে— শত্রুপক্ষের হাতে বন্দি ছিলেন অভিনন্দন। সেখানে তাঁর সঙ্গে কোনও গোপন রফা হয়েছে কি না পাকিস্তানের, তথ্য পাচারের প্রতিশ্রুতি দিয়ে ভারতে ফিরে এসেছেন কি না অভিনন্দন, দফায় দফায় জেরা করে তাও নিশ্চিত করছেন গোয়েন্দারা।
  • মনোবিদের কাছেও নিয়ে যাওয়া হবে অভিনন্দনকে। বন্দি থাকা অবস্থায় ভারতের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সংক্রান্ত তথ্য হাতাতে শত্রুপক্ষ তাঁকে অত্যাচার করেছে কিনা তা জানার চেষ্টা করা হবে। পাকিস্তানে কোনও ভয়ঙ্কর অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে হয়েছে কিনা দেখা হবে তাও।
  • অভিনন্দনকে জেরা করতে আনা হতে পারে ইনটেলিজেন্স ব্যুরো (আইবি) এবং রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালিসিস উইং (র) আধিকারিকদেরও। তবে সচরাচর পাইলটদের তাঁদের হাতে তুলে দেয় না বায়ুসেনা। তাই অভিনন্দনের ক্ষেত্রে তা নাও হতে পারে।
  • পাকিস্তানে পা রাখা থেকে ওয়াঘা সীমান্ত পার করা, গোয়েন্দাদের প্রতি মুহুর্তের সবিস্তার বর্ণনা দিতে হবে অভিনন্দনকে। বন্দি অবস্থায় তাঁর কাছে কী কী জানতে চাওয়া হয়, তা জানাতে হবে তাঁকে।
  • ওয়াঘা সীমান্ত থেকেই বাড়ি ফিরতে পারবেন না অভিনন্দন। বরং সেখান থেকে সরাসরি বায়ুসেনার গোয়েন্দাদের কাছে নিয়ে যাওয়া হবে তাঁকে।
  • বেশ কিছু ডাক্তারি পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হবে অভিনন্দনকে। দেখা হবে তিনি ফিট কিনা।
  • বন্দিদের শরীরে অনেকসময় মাইক্রোচিপ ঢুকিয়ে দেওয়া হয়, যার মাধ্যমে আড়ি পেতে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হাতিয়ে নেয় শত্রুপক্ষ। অভিনন্দনের শরীরে সেরকম কোনও চিপ বসানো হয়েছে কিনা, তা স্ক্যান কেরে দেখা হবে।

 

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।