প্রথম পাতা

অর্জুন সিংয়ের দাবি বিজেপিতে যোগ দেবে ১০০ বিধায়ক

পাল্টা দিলেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক

নিজস্ব প্রতিনিধি— লোকসভা ভোট যতই এগিয়ে আসছে ততই উত্তাল হয়ে উঠছে রাজ্য তথা জাতীয় রাজনীতি। ২০১৪ লোকসভা ভোটে সারা দেশে মোদি হাওয়ায় বিজেপি রাজ করলেও সেই তুলনায় প্রভাব ফেলতে পারেনি পশ্চিমবঙ্গে। তাই এবার পশ্চিমবঙ্গে ভালো ফল করাই এখন বিজেপির কেন্দ্রীয় দলের কাছে বড় চ্যালেঞ্জ। প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের পর থেকে এ রাজ্যে মোদি হাওয়ার ফলে বিজেপি’র দাপট বাড়লেও সঠিক নেতৃত্ব দানের মানুষের অভাবে ভুগছে বিজেপি। আর তাই শাসক দলের ঘর ভেঙেই বিজেপি সেই ঘাটতি পূরণ করতে চাইছে বলেই মনে করছেন রাজনীতিবিদদের একাংশ।

ভাটপাড়ার বিধায়ক অর্জুন সিং আগেই তৃণমূল ছেড়ে নাম লিখিয়েছেন বিজেপিতে। সেই সঙ্গে মাঝেমধ্যেই খবরের শিরোনামে উঠে আসছে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের বিজেপিতে যোগ দেওয়ার খবর। এরই মধ্যে মঙ্গলবার বারাসতে একটি মামলায় হাজিরা দিতে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে চাঞ্চল্যকর দাবি করলেন বারাকপুরের বিজেপি প্রার্থী অর্জুন সিং। এদিন তিনি বলেন, প্রায় একশো তৃণমূল বিধায়ক খুব শীঘ্রই দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেবেন। তবে এই দলে কারা রয়েছেন বা কবে তারা বিজেপিতে যোগ দেবেন সে বিষয়ে কোনও মন্তব্য করেননি সদ্য তৃণমূলত্যাগী এই বিধায়ক। প্রসঙ্গত, দোলের দিন বিধাননগরের মেয়র তথা রাজারহাট-নিউটাউনের বিধায়ক সব্যসাচীর একাধিক ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্যে দলবদলের আভাস পাওয়া যায়। তিনি বলেন, মেয়র হয়ে জন্মাইনি, তাই মেয়র থাকি বা না থাকি মানুষের মনে থাকতে চাই। এদিন বিজেপি প্রার্থীকে সব্যসাচীর এই বক্তব্যের প্রেক্ষিতে প্রশ্ন করা হলে তিনি ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য করে বলেন, আপনারা একটু অপেক্ষা করুন, উত্তর নিশ্চয়ই পাবেন।

এরই পাল্টা দিয়ে তৃণমূলের জেলা সভাপতি তথা খাদ্যমন্ত্রী জানান, ১১ জন কেন, একজন বিধায়কও তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাচ্ছেন না। ওর মতিভ্রম হয়েছে। কিছুদিন পরই আফসোস করবে। হতাশা ছাড়া আর তখন কিছুই করার থাকবে না। ওর চৈতন্য হোক। তিনি এর সঙ্গেই যোগ করেন, ওজন পঞ্চাশ গ্রাম। কথা বলছে পাঁচশো গ্রাম ওজনের। বিজেপিতে ওর দাম পয়েন্ট জিরো জিরো জিরো ফাইভ। তবে রাজনৈতিক মহলে শোরগোল পড়ে গিয়েছে, তৃণমূলের ক’জন তবে বিজেপি’র দিকে পা বাড়িয়ে রেখেছেন? উত্তর সময়ের অপেক্ষা।

এদিন দলত্যাগী অর্জুন সিং খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককেও একহাত নিয়ে বলেন, ওনার বিরুদ্ধে আমার কাছে অনেক ফাইলই জমা আছে। সেই ফাইল ওনার হাইটও ছাড়িয়ে যাবে। শুধু তাই নয়, তিনি আরও দাবি করেন, নোটবন্দির সময় ২০ কোটি টাকার দুর্নীতি করেছেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। যদিও এর পাল্টা দিয়েছেন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। এদিন অশোকনগরে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, অর্জুন সিং একটা অশিক্ষিত পাগল। পাগলের কথার কোনও জবাব দেব না। ওর চিকিৎসা প্রয়োজন। অর্জুন পিস্তল নিয়ে ঘোরে। ও যে ভাষায় কথা বলছে, সেটা পাড়ার দাদা, রুস্তম, গুন্ডাদের মতো কথা বলছে।

এদিন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের চ্যালেঞ্জের সম্পর্কে অর্জুন বলেন, “উনি সোনার চামচ মুখে নিয়ে জন্মেছেন। কোনওদিন সিপিএমের কাছে মার খাননি। উনি যুবরাজ হয়েছেন। পুলিশ নয়, লোকসভা নির্বাচনে ভোট দেবে সাধারণ মানুষ। তাই ২৩ মে ভোটের ফলাফলের দিনই তা পরিষ্কার হয়ে যাবে। এর প্রত্যুত্তরে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, অভিষেক দু’বছরে যা লড়াই করেছে, তা অর্জুন কোনওদিন করেনি। অর্জুন এতদিন বিড়াল মেরে বলেছে, বাঘ মেরেছি। ওর কথার কোনও ওজন নেই। এখন দেখার বিষয় যে, বারাকপুরে দলত্যাগী অর্জুন লোকসভা ভোটে বিজেপি’র হয়ে মহাভারতের অর্জুন হয়ে উঠতে পারেন কিনা।

Spread the love

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।